দেশে গণতন্ত্র রয়েছে বলেই আইপিইউ ও সিপিএ সম্মেলন সফলভাবে সম্পন্ন হয়েছে

নিউজ ডেস্ক: আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক এবং সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের বলেছেন, দেশে গণতন্ত্র রয়েছে বলেই আইপিইউ ও সিপিএ সফলভাবে সম্পন্ন হয়েছে। এ সম্মেলন দু’টি সফলভাবে সম্পন্ন হওয়ায় প্রমাণ হয়েছে গণতন্ত্র রয়েছে। আর দেশে গণতন্ত্র রয়েছে বলেই তারা বাংলাদেশকে লোকেশন হিসেবে বেছে নিয়েছে। দেশে গণতন্ত্র না থাকলে এ সম্মেলন দু’টি সফলভাবে সম্পন্ন হত না।

তিনি আজ শুক্রবার সকালে রাজধানীর পল্টনের জিরো পয়েন্টে শহীদ নূর হোসেন স্কয়ারে শহীদ নূর হোসেনের প্রতি শ্রদ্ধা নিবেদন শেষে সাংবাদিকদের এক প্রশ্নের জবাবে এ কথা বলেন।

এ সময় আওয়ামী লীগের যুগ্ম-সাধারণ সম্পাদক মাহবুব-উল-আলম হানিফ, এডভোকেট জাহাঙ্গীর কবির নানক, সাংগঠনিক সম্পাদক আহমেদ হোসেন, একেএম এনামুল হক শামীম, দপ্তর সম্পাদক ড. আবদুস সোবহান গোলাপ, সংস্কৃতি বিষয়ক সম্পাদক অসীম কুমার উকিল, কৃষি বিষয়ক সম্পাদক ফরিদুন নাহার লাইলী আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় কার্য নির্বাহী কমিটির সদস্য এস এম কামাল হোসেন প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।

সেতুমন্ত্রী বলেন, বিএনপি নির্বাচন বয়কট করল, আর তাতে গণতন্ত্র থাকলো না বিষয়টি এমন নয়। ৫ জানুয়ারির নির্বাচন নিয়ে তাঁরা বিষোদাগার করতে পারে কিন্তু দেশে গণতন্ত্র না থাকলে আইপিইউ ও সিপিএ সম্মেলন সফল ভাবে অনুষ্ঠিত হতো না।

আগামী জাতীয় নির্বাচনে অংশ গ্রহনের জন্য বিএনপিকে আহবান জানানো হবে কি-না জানতে চাইলে কাদের বলেন, ‘ আগামী নির্বাচনের জন্য বিএনপিকে অংশ গ্রহণের জন্য আবেদন না জানালেও তারা অংশ গ্রহণ করবে। কারণ ইতোমধ্যে বিএনপির নেতারা যে কোন মূল্যে নির্বাচনে আসার ঘোষণা দিয়েছেন।’

তিনি বলেন, আমরা চাই প্রতিদ্বন্দ্বিতাপূর্ণ নির্বাচন। বিএনপি একটি বড় দল। তারা নির্বাচনে এলে নির্বাচন প্রতিদ্বন্দ্বিতাপূর্ণ হবে। আগামী নির্বাচন নিয়ে বিএনপির সাথে সংলাপের কোন প্রয়োজন নেই বলেও জানান সেতুমন্ত্রী।

শহীদ নূর হোসেনের স্মৃতির প্রতি শ্রদ্ধা জানিয়ে তিনি বলেন, শহীদ নূর হোসেনের রক্ত, গণতন্ত্রের মূলমন্ত্র। ‘ স্বৈরাচার নিপাত যাক, গণতন্ত্র মুক্তি পাক’ স্লোগানকে বুকে-পিঠে লিখে তিনি স্বৈরাচার বিরোধী আন্দোলনে জীবন উৎসর্গ করেছেন। শহীদ নূর হোসেন জীবন দিয়ে দেশ মাতৃকার ঋণ শোধ করেছেন। তার আত্মত্যাগের মাধ্যমে গণতন্ত্র মুক্তি পেয়েছে। বাসস