প্রথম বছরেই উৎপাদন করা হবে প্রায় ১ লাখ মোটরসাইকেল

মুন্সিগঞ্জ প্রতিনিধি: বাংলাদেশে জাপানের মোটরসাইকেল উৎপাদনকারী প্রতিষ্ঠান হোন্ডা মোটর করপোরেশনের নতুন কারখানায় আগামী বছরের মাঝামাঝি থেকে উৎপাদন শুরু হবে। প্রথম বছর এ কারখানায় উৎপাদন করা হবে প্রায় ১ লাখ মোটরসাইকেল।

মুন্সিগঞ্জের গজারিয়ায় আবদুল মোনেম ইকোনমিক জোনে গতকাল রোববার কারখানাটির ভিত্তিপ্রস্তর স্থাপন অনুষ্ঠানে এসব তথ্য জানানো হয়। শিল্পমন্ত্রী আমির হোসেন আমু ভিত্তিপ্রস্তর স্থাপন করেন। এ সময় বাংলাদেশ অর্থনৈতিক অঞ্চল কর্তৃপক্ষের (বেজা) নির্বাহী চেয়ারম্যান পবন চৌধুরী, বাংলাদেশে নিযুক্ত জাপানের রাষ্ট্রদূত হিরোয়াসু ইজুমি, হোন্ডা মোটরসের এশিয়া ও প্রশান্ত মহাসাগরীয় অঞ্চলের প্রধান সিনজি আয়োয়ামা, বাংলাদেশ হোন্ডা লিমিটেডের ব্যবস্থাপনা পরিচালক ইউইচিরো ইশি ও হেড অব ফাইন্যান্স অ্যান্ড কমার্শিয়াল শাহ্ মুহাম্মদ আশিকুর রহমান উপস্থিত ছিলেন।

হোন্ডার নতুন কারখানাটি যৌথ বিনিয়োগে হচ্ছে। এতে বিনিয়োগ হবে প্রায় সাড়ে তিন শ কোটি টাকা। জমির পরিমাণ ২৫ একর। এর ৩০ শতাংশ মালিকানা থাকছে বাংলাদেশ ইস্পাত প্রকৌশল করপোরেশনের (বিএসইসি)।

অনুষ্ঠানে শিল্পমন্ত্রী বলেন, বাংলাদেশ ও জাপানের যৌথ বিনিয়োগে স্থাপিত মোটরসাইকেল কারখানায় বিএসইসি ৮৯ কোটি টাকা বিনিয়োগ করবে। বাকি ৭০ শতাংশ শেয়ারের অর্থ বিনিয়োগ করবে হোন্ডা। তিনি বলেন, দেশের যোগাযোগ ব্যবস্থার উন্নয়নে মোটরসাইকেলের ব্যবহার বাড়ছে। আগামী ৫ বছরে দেশে মোটরসাইকেলের চাহিদা ৩৫ শতাংশ বাড়বে।

আমির হোসেন আমু বলেন, চলতি বছরে মোটরসাইকেল সংযোজনের পাশাপাশি উৎপাদনশিল্প গড়ে তুলতে বিদ্যমান আইন সংশোধন ও নতুন প্রজ্ঞাপন জারি করা হয়েছে। মোটরসাইকেল উৎপাদননীতির খসড়া প্রণয়ন করা হয়েছে। শিগগিরই নীতি প্রণয়ন করা হবে। এ উদ্যোগের পরে দেশে মোটরসাইকেল উৎপাদনে এগিয়ে আসছেন উদ্যোক্তারা। তিনি বলেন, ২০২৫ সালে দেশের ১০ লাখ মোটরসাইকেল উৎপাদন করা হবে।