প্রাথমিক শিক্ষা সমাপনী পরীক্ষার প্রস্তুতি বাংলা

নিউজ ডেস্ক: ২১শে ফেব্রম্নয়ারি কীভাবে উদযাপন করা হয়?সাবিরা ইয়াসমিন চৌধুরী, শিক্ষক বগুলাগাড়ি প্রাথমিক বিদ্যালয়, নীলফামারী প্রিয় শিক্ষার্থী, আজ তোমাদের জন্য বাংলা থেকে পাঠ্যবই বহির্ভূত যোগ্যতাভিত্তিক প্রশ্নোত্তর নিয়ে আলোচনা করা হলো।

নিচের অনুচ্ছেদটি পড়ে ৫, ৬ ও ৭ নং প্রশ্নের উত্তর দাও:

১৯৯৯ সালে ইউনেসকো ২১ শে ফেব্রম্নয়ারিকে ‘আন্ত্মর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস’ হিসেবে ঘোষণা দেয়। তখন থেকে বিশ্বব্যাপী ২১ শে ফেব্রম্নয়ারি আন্ত্মর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস হিসেবে পালিত হয়। পৃথিবীর সব মানুষের মাতৃভাষার প্রতি সম্মান জানানো হয় এইদিনে। ২১ শে ফেব্রম্নয়ারিতে পৃথিবীর সব মানুষই স্মরণ করে বাংলাদেশের ভাষা শহীদদের। বাংলাদেশে ২১ শে ফেব্রম্নয়ারি দিনটি সরকারি ছুটির দিন। শহীদদের স্মরণে এইদিন সরকারি-বেসরকারি ভবনে কালো পতাকা উত্তোলন করা হয়। রাজপথ ও শহীদ মিনারে দৃষ্টিনন্দন আলপনা আঁকা হয়। সবাই বুকে কালো ব্যাজ পরে খালি পায়ে হেঁটে শহীদ মিনারে গভীর শ্রদ্ধার সঙ্গে ফুল দিয়ে থাকেন। ভাষাশহীদদের স্মরণে গাওয়া হয় এই অমর সঙ্গীত-

‘আমার ভাইয়ের রক্তে রাঙানো একুশে ফেব্রম্নয়ারি
আমি কি ভুলিতে পারি।’

৬। নিচে কয়েকটি শব্দ ও শব্দার্থ দেয়া হলো। নিচের বাক্যগুলোর শূন্যস্থানে উপযুক্ত শব্দটি লেখ:

শব্দ শব্দার্থ
দিবস দিন
অর্পণ দেয়া
বিশ্বব্যাপী পৃথিবীজুড়ে
উত্তোলন ওঠানো
স্মরণ মনে করা
অমর মৃতু্যহীন

(ক) আমরা শহীদদের শ্রদ্ধার সঙ্গে – করি।
(খ) শহীদ দিবসে কালো পতাকা – করা হয়।
(গ) ১৬ই ডিসেম্বর বাংলাদেশের বিজয় -।
(ঘ) আন্ত্মর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস – পালিত হয়।
(ঙ) শহীদ মিনারে সবাই পুষ্পস্ত্মবক – করে।

৬ নাম্বার প্রশ্নের উত্তর:
(ক) স্মরণ (খ) উত্তোলন (গ) দিবস
(ঘ) বিশ্বব্যাপী (ঙ) অর্পণ

৭। নিচের প্রশ্নগুলোর উত্তর লেখ।
(ক) বাংলাদেশে ২১ শে ফেব্রম্নয়ারি কীভাবে উদযাপন করা হয়?
(খ) ভাষাশহীদদের স্মরণে গাওয়া গানটিকে অমর বলা হয়েছে কেন?
(গ) ২১ শে ফেব্রম্নয়ারির দিনটি বিশ্বব্যাপী পালিত হওয়ার কারণ কী?

৭ নাম্বার প্রশ্নের উত্তর:

(ক) বাংলাদেশে ২১ শে ফেব্রম্নয়ারি সরকারি ছুটির দিন। এ দিন সরকারি- বেসরকারি প্রতিষ্ঠানে কালো পতাকা উত্তোলন করা হয়। ভাষাশহীদদের স্মরণে এ দেশের মানুষ শহীদ মিনারে ফুল দিয়ে শ্রদ্ধা ও ভালোবাসা জানিয়ে থাকে। শিক্ষা প্রতিষ্ঠান ও সামাজিক-সাংস্কৃতিক প্রতিষ্ঠানে ভাষা শহীদদের নিয়ে আয়োজন করা হয়।সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান, বইমেলা ও আলোচনা সভা। বাংলাদেশে ২১ শে ফেব্রম্নয়ারি দিনটি অত্যন্ত্ম ভাষাগাম্ভীর্য ও শ্রদ্ধাবনত চিত্তে পালন করা হয়।

(খ) ‘আমার ভাইয়ের রক্তে রাঙানো একুশে ফেব্রম্নয়ারি’- এই গানটি ভাষা শহীদদের স্মরণে প্রতি বছর ২১ শে ফেব্রম্নয়ারিতে গাওয়া হয়। শহীদদের স্মরণ করে যুগ যুগ ধরে এ গানটি গাওয়া হবে। শহীদদের অবদান যেমন ভোলার নয়, ঠিক তেমনি এই গানও বাংলাদেশের মানুষ কখনো ভুলবে না। এই গান ২১ শে ফেব্রম্নয়ারির প্রভাত ফেরির গান। তাই এ গানকে অমর বলা হয়েছে।