শিল্পীরা সমাজ সংস্কারে প্রগতিশীল ভূমিকা পালন করে থাকেন : আসাদুজ্জামান নূর

নিউজ ডেস্ক: সংস্কৃতি বিষয়ক মন্ত্রী আসাদুজ্জামান নূর বলেছেন, শিল্পীরা যুগে যুগে সমাজ পরিবর্তনে ও সংস্কারে প্রগতিশীল ভূমিকা পালন করে আসছেন। বায়ান্নর ভাষা আন্দোলন, একাত্তরের মহান মুক্তিযুদ্ধ থেকে শুরু করে সব ধরনের আন্দোলন-সংগ্রামে তাঁরা প্রগতিশীল ভূমিকা পালন করেছেন, অন্যায়-অত্যাচারের বিরুদ্ধে প্রতিবাদমুখর হয়েছেন। তাঁদের এ প্রতিবাদী কণ্ঠস্বর আরো জোরালো করা দরকার।

মন্ত্রী ঢাকায় ধানমন্ডির দৃক গ্যালারিতে রাঙামাটির লংগদু উপজেলায় সাম্প্রদায়িক আক্রমণের শিকার চাকমা নৃগোষ্ঠীর সাহায্যার্থে ‘ফিনিক্স অভ্ লংগদু’ শীর্ষক তহবিল গঠনমূলক প্রদর্শনীর সমাপনী অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তৃতায় এসব কথা বলেন। তিনি আরো বলেন, সরকার ক্ষুদ্র নৃগোষ্ঠীর জীবনাচরণ, সংস্কৃতি ও ঐতিহ্য রক্ষায় কাজ করে যাচ্ছে। সংস্কৃতি বিষয়ক মন্ত্রণালয়ের পক্ষ থেকে বিদেশগামী প্রতিটি সাংস্কৃতিক দলে ক্ষুদ্র নৃগোষ্ঠীর প্রতিনিধিত্ব রাখা হচ্ছে।

বাংলাদেশ ইন্ডিজেনাস ফোরামের টেকনোক্র্যাট চেয়ার প্রফেসর মিসবাহ কামালের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি হিসেবে বক্তব্য দেন বাংলাদেশে ফিলিপাইনের রাষ্ট্রদূত ভিনসেন্ট ভিভেনসিও তেজামো বেন্দিলো, ইন্ডিজেনাস পিপলস বিষয়ক ককাসের সদস্য ইয়াসিন আলী এমপি, পার্বত্য চট্টগ্রাম কমিশনের সদস্য ইফতেখারুজ্জামান, দৃক গ্যালারির প্রতিষ্ঠাতা শহীদুল আলম, এটিএন বাংলার প্রধান উপদেষ্টা নওয়াজিশ আলী খান ও বাংলাদেশ ইন্ডিজেনাস ফোরামের সাধারণ সম্পাদক সঞ্জীব দ্রং।

উল্লেখ্য, গত ২ জুন ২০১৭ তারিখে বাংলাদেশের অন্যতম ক্ষুদ্র নৃগোষ্ঠী চাকমা সম্প্রদায়ের লোকজন রাঙামাটির লংগদু উপজেলায় সাম্প্রদায়িক হামলার শিকার হয়। এতে তিনটি গ্রামের ২২৪টি বাড়িঘর পুড়ে ছাই হয়ে যায় এবং প্রায় ৪০০টি পরিবারের জানমাল ও সহায়-সম্পত্তি প্রত্যক্ষ বা পরোক্ষভাবে ক্ষতিগ্রস্ত হয়। এ কারণে মানবিক দিক বিবেচনা করে ও বাংলাদেশের সংবিধানের ধর্মনিরেপক্ষতার বাণীকে সমুন্নত রাখতে আক্রান্ত পরিবারসমূহের সাহায্যার্থে ‘ফিনিক্স অভ্ লংগদু’ শীর্ষক তহবিল গঠনমূলক প্রদর্শনীর আয়োজন করা হয়।

টেরাকোটা ক্রিয়েটিভসের আয়োজনে প্রদর্শনীতে ফটোগ্রাফি, পেইন্টিং, ইনস্টলেশন ও পারফর্মিং আর্ট, প্রকাশনা, ক্ষুদ্র নৃগোষ্ঠীদের খাবার ও তাঁদের ব্যবহৃত বিভিন্ন ঐতিহ্যবাহী সামগ্রী থাকছে।