ধর্ষণের পর গৃহবধূর মাথার চুল কেটে নির্যাতন

নিউজ ডেস্ক: রংপুরে এক গৃহবধূকে (১৮) ধর্ষণের পর তার মাথার চুল কেটে নির্যাতনের অভিযোগ উঠেছে।

রংপুর নগরীর মন্থনা এলাকায় ওই ঘটনা ঘটে।

মানসিকভাবে বিপর্যন্ত ওই গৃহবধূ বর্তমানে রংপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন রয়েছেন। এ ঘটনায় মঙ্গলবার রাতেই কোতয়ালী থানায় মামলা দায়ের হয়েছে।

মামলা সূত্রে জানা যায়, শনিবার রাতে বাড়িতে স্বামী না থাকার সুযোগে প্রতিবেশি হাসান আলী ওই গৃহবধূকে ধর্ষণ করেন। পরে এ ঘটনা জানাজানি হলে গৃহবধূকে মারধর করে তার স্বামী বাড়ি থেকে বের করে দেন। বাড়ি থেকে বের হয়ে গৃহবধূ ওই রাতেই হাসান আলীর বাড়িতে চলে যান। এসময় হাসান ও তার স্বজনরা গৃহবধূর মাথার চুল কেটে দিয়ে মারধর করেন। পরে স্থানীয়দের সহায়তায় রোববার তাকে রংপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়।

ধর্ষণের শিকার ওই গৃহবধূ বর্তমানে রংপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের ওয়ান স্টোপ ক্রাইসিস সেন্টারে (ওসিসি) চিকিৎসাধীন রয়েছেন।

এ ঘটনায় গৃহবধূর নানা আব্দুল হাকিম বাদী হয়ে মঙ্গলবার রাতে কোতয়ালী থানায় ধর্ষক হাসানসহ আটজনকে আসামি করে মামলা দায়ের করেন।

বিষয়টি নিশ্চিত করে কোতয়ালী থানার ওসি বাবুল মিয়া বলেন, ‘বিষয়টি গুরুত্বসহকারে খতিয়ে দেখা হচ্ছে। ঘটনায় জড়িতদের গ্রেফতারে অভিযান চলছে।’