ফল প্রকাশের দাবিতে নিউমার্কেটে শিক্ষার্থীদের সড়ক অবরোধ

নিউজ ডেস্ক: শিক্ষার্থীদের বিক্ষোভের মুখে সপ্তাহের প্রথম দিনেই প্রায় স্থবির হয়ে পড়েছে রাজধানীর কয়েকটি সড়ক। চতুর্থ বর্ষের ফল প্রকাশসহ ৫ দফা দাবিতে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের অধিভুক্ত সাতটি কলেজের শতাধিক শিক্ষার্থী আজ রোববার সকাল নয়টার দিকে রাজধানীর নিউমার্কেট ক্রসিংয়ে সড়ক অবরোধ করলে এ অচলাবস্থার সৃষ্টি হয়।

পুলিশ আসাদগেট ক্রসিং থেকে নিউমার্কেটের দিকে সড়ক বন্ধ করে যানবাহনগুলোকে ফার্মগেট হয়ে ঘুরিয়ে দিচ্ছে। এতে তীব্র যানজটের সৃষ্টি হয়।

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের অধিভুক্ত সাতটি কলেজের শতাধিক শিক্ষার্থী নীলক্ষেত মোড় অবরোধ করেছেন। এতে প্রায় স্থবির হয়ে পড়েছে রাজধানীর কয়েকটি রুট। ছবি: জাহিদুল করিম

বিক্ষোভে অংশ নেওয়া একজন ছাত্র বলেন, মূলত চতুর্থ বর্ষের স্নাতক পরীক্ষার ফলাফল প্রকাশসহ পাঁচ দফা দাবিতে তাঁরা সকাল নয়টা থেকে নীলক্ষেতের মোড়ে অবস্থান নিয়েছেন। জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের অধিভুক্ত কলেজগুলোর চতুর্থ বর্ষের ফল গত মে মাসে প্রকাশিত হয়েছে। অথচ তাঁদের ফল এখনো প্রকাশ না হওয়ায় তাঁরা স্নাতকোত্তর শ্রেণিতে ভর্তিও হতে পারছেন না।

গত বৃহস্পতিবার তাঁরা পাঁচ দফা দাবিতে শহীদ মিনারে বিক্ষোভ কর্মসূচির ঘোষণা দিয়েছিলেন। ফল প্রকাশ ছাড়া অন্য দাবির মধ্যে রয়েছে, ১ হাজার ২০০ ছাত্রের বিরুদ্ধে করা মামলা প্রত্যাহার, একাডেমিক ক্যালেন্ডার প্রকাশ, তৃতীয় বর্ষের রুটিন প্রকাশ করা ও ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় অধিভুক্ত কলেজের জন্য স্বতন্ত্র ওয়েবসাইট খোলা। অবরোধ আন্দোলনে বিভিন্ন দাবি তুলে ধরেন শিক্ষার্থীরা। ছবি: প্রথম আলাে

ঢাকা মহানগর পুলিশের ট্রাফিক বিভাগের নিউমার্কেট অঞ্চলের সহকারী কমিশনার আনিসউদ্দীন বাহাদুর বলেন, সকাল সোয়া নয়টার দিকে তাঁরা সড়ক অবরোধ করেন। তাঁদের বুঝিয়ে রাস্তা খালি করার চেষ্টা চলছে।

পুলিশ জানায়, দুপুর সোয়া ১২টার দিকে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য অধ্যাপক আখতারুজ্জামান ঘটনাস্থলে গিয়ে ছাত্রদের দাবি পূরণের আশ্বাস দিয়ে তাদের ফেরানোর চেষ্টা করেন।

চলতি বছরের ফেব্রুয়ারিতে জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের অধীনে থাকা সাতটি কলেজকে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের অধিভুক্ত করার ঘোষণা দেওয়া হয়। এই সাত কলেজ হলো ঢাকা কলেজ, ইডেন মহিলা কলেজ, সরকারি শহীদ সোহরাওয়ার্দী কলেজ, কবি নজরুল সরকারি কলেজ, বেগম বদরুন্নেসা সরকারি মহিলা কলেজ, মিরপুর সরকারি বাঙলা কলেজ ও সরকারি তিতুমীর কলেজ। এসব কলেজে স্নাতক ও স্নাতকোত্তর পর্যায়ে ১ লাখ ৬৭ হাজার ২৩৬ জন শিক্ষার্থী ও ১ হাজার ১৪৯ জন শিক্ষক রয়েছেন। পরে এসব কলেজের শিক্ষা কার্যক্রমে অব্যবস্থাপনা শুরু হলে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের এ সিদ্ধান্ত সমালোচিত হয়।

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের অধীনে আসার পরে পরীক্ষা ও ফল প্রকাশ নিয়ে নিয়ে নানা জটিলতা তৈরি হয়। পরীক্ষার সময়সূচি (রুটিন) না দেওয়ায় গত জুলাই মাসে শিক্ষার্থীরা প্রথম দফায় আন্দোলনে নামে। গত ২০ জুলাই পরীক্ষার রুটিনসহ পাঁচ দফা দাবিতে শাহবাগে বিক্ষোভের সময় পুলিশ বাধা দেয়। এ সময় পুলিশের ছোড়া টিয়ার শেলের আঘাতে চোখ হারান তিতুমীর কলেজের অনার্স তৃতীয় বর্ষের ছাত্র সিদ্দিকুর রহমান। ওই বিক্ষোভের ২৩ দিনের মাথায় পরীক্ষার রুটিন দেওয়া হলেও চোখে আলো ফেরেনি সিদ্দিকুরের। আর কোনো দিন ফিরবে সে সম্ভাবনার কথাও বলেননি দেশে-বিদেশের কোনো চিকিৎসক।