যুক্তরাষ্ট্র থেকে অধিক ব্যয়ে থাড অস্ত্র কিনছে সৌদি আরব

নিউজ ডেস্ক: সৌদি আরবের কাছে ১৫ বিলিয়ন ডলারে বিশ্বের সবচেয়ে শক্তিশালী ক্ষেপণাস্ত্র বিধ্বংসী ব্যবস্থা ‘থাড’ বিক্রি করতে রাজি হয়েছে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র। আগামী ৩০ দিনের মধ্যে মার্কিন কংগ্রেস তাতে ভেটো না দিলে সৌদিকে থাড সরবরাহ করা হবে বলে শুক্রবার জানিয়েছে পেন্টাগন।

ইতোমধ্যেই কাতার ও সংযুক্ত আরব আমিরাতের কাছে থাড বিক্রি করেছে ডোনাল্ড ট্রাম্পের দেশ। উত্তর কোরিয়ার একের পর এক পারমাণবিক ক্ষেপণাস্ত্র হামলার হুমকির জেরে দক্ষিণ কোরিয়াতেও থাড মোতায়েন করেছে যুক্তরাষ্ট্র।

তবে বিশেষজ্ঞদের ধারণা, উত্তর কোরিয়ার ক্ষেপণাস্ত্র নিষ্ক্রিয় করার মতো প্রযুক্তি যুক্তরাষ্ট্রের নেই। সে কারণে উত্তর কোরিয়ার ক্ষেপণাস্ত্র জাপানের উপর দিয়ে গেলেও তা ভূপাতিত করার উদ্যোগ নেয়া হয়নি।

এদিকে যুক্তরাষ্ট্রের কাছ থেকে তিনশ ৬০টি ক্ষেপণাস্ত্রসহ ৪৪ টি থাড লাঞ্চার, ফায়ার কন্ট্রোল স্টেশন এবং রাডার কেনার আগ্রহ প্রকাশ করেছিল সৌদি আরব। তবে তাৎক্ষণিকভাবে তাতে সাড়া দেয়নি ওয়াশিংটন।

বৃহস্পতিবার রাশিয়ার কাছ থেকে এস-৪০০ আকাশ প্রতিরক্ষা ব্যবস্থা কেনার চুক্তি স্বাক্ষর করেছে সৌদি আরব। বুধবার রাতে ঐতিহাসিক মস্কো সফরে গিয়ে সৌদি আরবের বাদশাহ সালমান বিন আবদুল আজিজ আল সৌদি এ চুক্তি করেন। এছাড়া আরও বেশ কয়েকটি চুক্তিও স্বাক্ষর করেন তিনি।

বৃহস্পতিবার ক্রেমলিনে রুশ প্রেসিডেন্ট ভ্লাদিমির পুতিন ও সৌদি আরবের বাদশাহ ঐতিহাসিক বৈঠক করার পর এসব চুক্তি স্বাক্ষরের বিষয়টির ঘোষণা আসে।

তার একদিন পরেই পেন্টাগন জানায়, ১৫ বিলিয়ন ডলারে যুক্তরাষ্ট্র থাড বিক্রি করবে সৌদির কাছে। তবে সংস্থাটি এক বিবৃতিতে জানিয়েছে, মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের জাতীয় নিরাপত্তা ও পররাষ্ট্রনীতির স্বার্থে এবং মধ্যপ্রাচ্যে ইরান ও অন্যান্য আঞ্চলিক শক্তির হুমকির পরিপ্রেক্ষিতে সৌদি আরবের দীর্ঘমেয়াদি নিরাপত্তার জন্য থাড বিক্রি করা হচ্ছে।