প্রধানমন্ত্রী আজ ফিরছেন : দেয়া হবে গণসংবর্ধনা

নিউজ ডেস্ক : প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা যুক্তরাষ্ট্র ও যুক্তরাজ্যে তিন সপ্তাহের সফর শেষে দেশের উদ্দেশে লন্ডন ত্যাগ করেছেন।

শুক্রবার বাংলাদেশ সময় রাত ১১টা ৫৫ মিনিটে (লন্ডনের স্থানীয় সময় শুক্রবার সন্ধ্যা ৬টা ৫৫ মিনিট) লন্ডনের হিথ্রো আন্তর্জাতিক বিমানবন্দর ত্যাগ করেন প্রধানমন্ত্রী।

প্রধানমন্ত্রীর প্রেস সচিব ইহসানুল করিম জানান, বিমান বাংলাদেশ এয়ারলাইন্সের একটি ভিভিআইপি ফ্লাইট প্রধানমন্ত্রী ও তাঁর সফর সঙ্গীদের নিয়ে বাংলাদেশের উদ্দেশে  লন্ডন ত্যাগ করেছে। যুক্তরাজ্যে নিযুক্ত বাংলাদেশের হাই কমিশনার নাজমুল কাওনাইন বিমানবন্দরে প্রধানমন্ত্রীকে বিদায় জানান। বিমানটি শনিবার সকাল ৯টা ২৫ মিনিটে ঢাকায় হযরত শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে অবতরণের কথা রয়েছে।

এদিকে, বাংলাদেশ আওয়ামী লীগ প্রধানমন্ত্রী ও দলীয় সভানেত্রীকে গণসংবর্ধনা দেবে। আওয়ামী লীগ ও সহযোগী সংগঠনগুলোর নেতা-কর্মীরা বিমানবন্দর থেকে প্রধানমন্ত্রীর সরকারি বাসভবন গণভবন পর্যন্ত রাস্তার দু’পাশে দাঁড়িয়ে প্রধানমন্ত্রীকে অভিনন্দন জানাবেন।

রোহিঙ্গাদের প্রতি প্রধানমন্ত্রীর মানবিক আচরনের জন্য ব্রিটিশ পত্রপত্রিকা শেখ হাসিনাকে মাদার অব হিউম্যানিটি’ আখ্যায়িত করেছে। সংযুক্ত আরব আমীরাতের (ইউএই) সর্বাধিক প্রচারিত দৈনিক (খালিজ টাইমস) রোহিঙ্গাসংকটের প্রতি মানবিক আবেদনের জন্য বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে উচছসিত প্রসংসা করে তাঁকেপ্রাচ্যের নতুন তারকা হিসাবে অভিহিত করেছে। এছাড়াও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা জাতিসংঘের সাধারণ পরিষদের৭২তম অধিবেশনে রোহিঙ্গাদের নিরাপত্তা ও তাদের ফেরত নিতে জাতিসংঘ সাধারণ পরিষদে তাঁর দেয়া ৫ দফাপ্রস্তাব বিশ্ব নেতৃবৃন্দের কাছে ব্যাপক গ্রহণযোগ্যতা পায়। এসব কারণে আওয়ামী লীগ প্রধানমন্ত্রীকে সংবর্ধনা দেয়ার সিদ্ধান্ত গ্রহণ করে।

এ উপলক্ষে দলের পক্ষ থেকে সকল প্রস্তুতি ইতোমধ্যেই সম্পন্ন করা হয়েছে।

আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক এবং সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের দলীয় নেতা-কর্মী, দলের ঢাকা উত্তর ও দক্ষিণ শাখা এবং সহযোগী সংগঠনসহ সর্বস্তরের জনগণকে আগামীকাল সকাল সাড়ে ৮টার মধ্যে নিজ নিজ জায়গায় অবস্থান নিয়ে সংবর্ধনাকে সফল করার আহ্বান জানিয়েছেন।

যুক্তরাষ্ট্রে ১৬ দিনের সরকারি সফর শেষে শেখ হাসিনা গত সোমবার লন্ডনের উদ্দেশে ওয়াশিংটন ত্যাগ করেন। তিনি জাতিসংঘের সাধারণ পরিষদের ৭২তম অধিবেশনে যোগ দিতে গত ১৭ সেপ্টেম্বর নিউইয়র্ক পৌঁছান। সাধারণ পরিষদের অধিবেশন যোগদান শেষে গত ২২ সেপ্টেম্বর তিনি নিউইয়র্ক থেকে যুক্তরাষ্ট্রের রাজধানী ওয়াশিংটন সফরে যান। ওয়াশিংটনে এক সপ্তাহ অবস্থানের পর গত ২ অক্টোবর লন্ডন হয়ে তাঁর দেশে ফেরার কথা ছিল। কিন্তু ২৫ সেপ্টেম্বর ওয়াশিংটনের একটি হাসপাতালে প্রধানমন্ত্রীর গলব্লাডারে অস্ত্রোপচারের কারণে তাঁর দেশে ফেরায় বিলম্ব হয়।