ছয় দিন বন্ধ থাকার পর বেনাপোল বন্দরে কার্যক্রম শুরু

নিউজ ডেস্ক:  দুর্গাপূজা, আশুরা ও গান্ধীজীর জন্মবার্ষিকী উপলক্ষে টানা ছয় দিন বেনাপোল-পেট্রাপোল বন্দর দিয়ে আমদানি-রফতানি বন্ধ থাকার পর মঙ্গলবার সকাল থেকে দু’দেশের মধ্যে পুনরায় আমদানি-রফতানি কার্যক্রম শুরু হয়েছে। এর ফলে কর্মচাঞ্চল্য ফিরে এসেছে উভয় বন্দর এলাকায়।

বন্দর সূত্রে জানা গেছে, প্রতিদিন পেট্রাপোল বন্দর থেকে সাড়ে চারশ’ থেকে পাঁচশ’ রফতানি পণ্য বোঝাই ট্রাক বেনাপোল বন্দরে প্রবেশ করে। আর বেনাপোল থেকে দুইশ’ থেকে আড়াইশ’ ট্রাক রফতানি পণ্য নিয়ে যায় ভারতের পেট্রাপোল বন্দরে। দেশের ৭৫ ভাগ শিল্প প্রতিষ্ঠানের কাঁচামালের পাশাপাশি বিভিন্ন খাদ্যদ্রব্য আসে এ বন্দর দিয়ে। দুর্গাপূজা, আশুরা ও গান্ধীজীর জন্মবার্ষিকী উপলক্ষে ভারতে গত ২৭ সেপ্টেম্বর থেকে ২ অক্টোবর টানা ছয় দিন সরকারি ছুটি থাকায় ভারত ও বাংলাদেশের মধ্যে আমদানি-রফতানি বন্ধ ছিল। ভারতে ছুটির সময় আমদানি-রফতানি বন্ধ থাকলেও বেনাপোল বন্দরে পণ্য খালাসসহ শুল্কবিভাগ ও বন্দরের সকল কাজকর্ম চালু ছিল। পাসপোর্টযাত্রী চলাচল ছিল স্বাভাবিক।

বেনাপোল সিঅ্যান্ডএফ এজেন্টস অ্যাসোসিয়েশনের সভাপতি মফিজুর রহমান সজন জানান, ছয় দিন বন্ধ থাকার পর মঙ্গলবার সকাল থেকে আমদানি-রফতানি কার্যক্রম শুরু হয়েছে। টানা ছয় দিন আমদানি-রফতানি বন্ধ থাকায় আজ প্রচুর ট্রাক ভারত থেকে আসবে পণ্য নিয়ে। পণ্যজটের পাশাপাশি যানজটও থাকবে বন্দর এলাকায়। তবে পণ্য দ্রুত খালাস হলে সে জট কমতে থাকবে।

ভারতের পেট্রাপোল বন্দরের সিঅ্যান্ডএফ এজেন্ট স্টাফ ওয়েল ফেয়ার অ্যাসোসিয়েশনের সাধারণ সম্পাদক কার্তিক চক্রবর্তী জানান, শারদীয় দুর্গাপূজা, পবিত্র আশুরা ও গান্ধীজীর জন্মবার্ষিকীর কারণে ভারতে সরকারি ছুটি থাকায় ভারত ও বাংলাদেশের মধ্যে ছয় দিন আমদানি-রফতানি বন্ধ ছিল। আজ সকাল থেকে দু’দেশের মধ্যে আমদানি-রফতানি পুনরায় চালু হয়েছে। বাংলাদেশে প্রবেশের অপেক্ষায় শত শত পণ্যবাহী ট্রাক ভারতীয় বন্দর এলাকা ও বনগাঁ পার্কিং এ দাঁড়িয়ে আছে।

বেনাপোল চেকপোস্ট কাস্টমস কার্গো শাখার রাজস্ব অফিসার গোলাম মাওলা জানান, টানা ছয় দিন পর আজ সকাল থকে বেনাপোল-পেট্রাপোল বন্দর দিয়ে আমদানি-রফতানি শুরু হয়েছে। আমদানি-রফতানি শুরু হওয়ায় কর্মচাজ্ঞল্য ফিরে এসেছে দু’দেশের বন্দর এলাকায়।

বেনাপোল স্থলবন্দর কর্তৃপক্ষের ভারপ্রাপ্ত পরিচালক (ট্রাফিক) আমিনুল ইসলাম বলেন, ছয় দিন বন্ধ থাকার পর আমদানি-রফতানি পুনরায় চালু হওয়ায় যানজট ও পণ্যজট হওয়া স্বাভাবিক। পণ্যজট কমাতে দ্রুত পণ্য খালাসের জন্য সংশ্লিষ্টদের নির্দেশ দেওয়া হয়েছে।

বেনাপোল কাস্টম হাউজের কমিশনার মো. শওকাত হোসেন জানান, ছয় দিনের ঘাটতি পুষিয়ে নিতে দ্রুত পণ্য খালাস করার জন্য শুল্ক ভবনের সকল বিভাগের কর্মকর্তাদের নির্দেশ দেওয়া হয়েছে।

এছাড়া ২৪ ঘণ্টা কাজও চলছে বলে তিনি জানান।