বাংলাদেশের স্বাধীনতাকে ছোট ও খর্ব করা হয়েছে: ফখরুল

নিউজ ডেস্ক: বিএনপির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর অভিযোগ করেছেন, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা জাতিসংঘে বক্তব্য দিয়েছেন। কিন্তু মিয়ানমারে রোহিঙ্গাদের ওপর যে গণহত্যা হয়েছে তা তিনি বললেন না। জাতিসংঘে তিনি এই গণহত্যার নিন্দাও করেননি, তিনি মূল জায়গাটিতেই যাচ্ছেন না।

শুক্রবার বিকেলে ঢাকা রিপোর্টার্স ইউনিটিতে আয়োজিত এক আলোচনা সভায় ফখরুল এ অভিযোগ করেন। বিএনপির চেয়ারপারসন খালেদা জিয়ার ‘দশম কারামুক্তি দিবস’ উপলক্ষে জাতীয়তাবাদী টেক্সটাইল ইঞ্জিনিয়ার্স অ্যাসোসিয়েশন অব বাংলাদেশ এ সভার আয়োজন করে।

বিএনপি মহাসচিব বলেন, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা জাতিসংঘে প্রস্তাব দিয়েছেন রোহিঙ্গা অধ্যুষিত অঞ্চলকে সেফ জোনে রূপান্তর করার, সেফ জোনের মানে কি বাংলাদেশকে আরেকটি প্যালেস্টাইন রাষ্ট্রে পরিণত করতে চান? মিয়ানমার বাংলাদেশের স্বাধীনতার ওপর আগ্রাসন চালিয়েছিল রোহিঙ্গাদের জোরপূর্বক বাংলাদেশে পাঠিয়ে। এতে বাংলাদেশের স্বাধীনতাকে ছোট ও খর্ব করা হয়েছে।

ফখরুল আরো বলেন, জাতীয় ঐক্য সৃষ্টির দরকার, পুরো জাতিকে এক না করলে সমস্যার সমাধান অসম্ভব হবে। প্রয়োজনে মিয়ানমারের ওপর অর্থনৈতিক অবরোধ আরোপের মাধ্যমে রোহিঙ্গাদের ফিরিয়ে নিতে বাধ্য করা হবে। ঐক্য ছাড়া আপনার হাতও শক্তিশালী হবে না। রোহিঙ্গাদের নাগরিকত্বের অধিকার দিয়ে সসম্মানে ফিরিয়ে নিতে হবে। অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন প্রকৌশলী মো. ফখরুল আলম, সঞ্চালনা করেন এ বি এম রুহুল আমিন আকন্দ।