চন্দনাইশে কয়েন নিয়ে বিপাকে মানুষ

নিউজ ডেস্ক: চট্টগ্রামের চন্দনাইশ উপজেলায় মুদ্রা কয়েন নিয়ে বিপাকে পড়েছেন মানুষ। বাজারে মুদ্রা কয়েন না চলার কারণে বিভিন্ন শ্রেণির পেশাজীবীর মানুষকে চরম ভোগান্তির শিকার হতে হচ্ছে। সরকার কিংবা বাংলাদেশ ব্যাংকের কোন বিধি নিষেধ না থাকলেও বাজারে এক, দুই টাকার কয়েন ব্যবহার হচ্ছে না।

বিশেষ করে কেউ এক, দুই টাকার কয়েন নিতেও চায় না। এতে করে ব্যবসায়ী কিংবা সাধারণ মানুষের নিকট প্রচুর মুদ্রা কয়েন আটকে পড়েছে। যার কারণে বাজারে নিম্ন মানের পাঁচ টাকার চেয়ে নির্মাণে দামের কোন জিনিসপত্র এক কিংবা দুই টাকায় পাওয়া যায় না। এক সময় একটি খিলি পানের দাম নেয়া হতো তিন টাকায় আর এখন সেই পানের খিলি প্রতিটি দোকানে বিক্রি করা হচ্ছে পাঁচ টাকায়।

এ বাপারে চন্দনাইশ উপজেলার গাছবাড়িয়া খান হাটের পান সিগারেটের দোকানদার আবুল হোসেন বলেন, নিত্যপ্রয়োজনীয় জিনিস পত্রের দাম বৃদ্ধির কারণে পানের খিলির দামও বেড়ে গেছে। আগে সবাই ভাংতি টাকা (মুদ্রা কয়েন) দিত। কয়েন ব্যবহার ছিল বলে আমরা নিতাম এসব কয়েন। এখন কেন জানি মুদ্রা কয়েনের ব্যবহার চলছে না। এর ফলে আমার নিকট প্রায় ৫/৬ হাজার টাকা পরিমাণ এক-দুই টাকার মুদ্রা কয়েন পড়ে রয়েছে। কেউ তা নিতে চায় না। যেন বাজারে মুদ্রা কয়েন অচল হয়ে পড়েছে।

কাঞ্চনাবাদ এলাকার ব্যবসায়ী নুরুল আবছার বলেন, খুচরা মুদ্রা কয়েন-এ পকেট ভারী হয়ে যায় এবং পকেট থেকে পড়ে যাওয়ার কারণে কেউ মুদ্রার কয়েন ব্যবহার করতে চায় না। এ ছাড়াও এলাকার যে কোন ব্যাংকে নিলে তারা এসব কয়েন নিতে রাজি হননা। যার কারণে ক্রমে ক্রমে এক-দুই টাকার মুদ্রা কয়েন ব্যবহার করা বন্ধ হয়ে পড়েছে।