নিরাপত্তা ইস্যুতে একমত জাপান-ব্রিটেনের প্রধানমন্ত্রী

আন্তর্জাতিক ডেস্ক : প্রতিরক্ষা সম্পর্ক, সাইবার নিরাপত্তা এবং সন্ত্রাসবিরোধী যুদ্ধে যৌথভাবে কাজ করার জন্য জাপানের সঙ্গে প্রতিশ্রুতিবদ্ধ হয়েছে যুক্তরাজ্য। বৃহস্পতিবার টোকিওতে জাপানের প্রধানমন্ত্রী শিনজো আবের সঙ্গে বৈঠকও করেছেন যুক্তরাজ্যের প্রধানমন্ত্রী থেরেসা মে। খবর রয়টার্সের।

উত্তর কোরিয়ার একের পর এক ক্ষেপণাস্ত্র পরীক্ষার জেরে সৃষ্ট নিরাপত্তা শঙ্কায় জাপানের প্রধানমন্ত্রী শিনজো আবের সঙ্গে বৈঠক করেন তিনি। জাতীয় নিরাপত্তা বিষয়ক বৈঠকের পূর্বে জাপানের প্রতিরক্ষামন্ত্রী ইতসুনোরী ওনোদেরার সঙ্গে ইজুমু হেলিকপ্টারে চড়ে ঘটনাস্থলে পৌঁছান থেরেসা মে।

জাপানের প্রতিরক্ষামন্ত্রী ওনোদেরাকে থেরেসা বলেন, প্রতিরক্ষা ক্ষেত্রে আমাদের ক্রমবর্ধমান পারস্পরিক সহযোগিতা এবং অংশীদারিত্বের অংশ হিসেবে আমার অাজকের এই ভ্রমণ।

মের সঙ্গে শিনজো আবে যৌথ নিরাপত্তার ব্যাপারে একমত হয়েছেন। এছাড়া ব্রিটিশ সেনাদের জাপানের মাটিতে অনুশীলনেরও পরিকল্পনা রয়েছে। ২০২০ সালে অলিম্পক গেমসে যেনো কোনো রকম সাইবার কিংবা জঙ্গি হামলা না হয়, সে দিকেও খেয়াল রাখার ব্যাপারে দু’পক্ষের মধ্যে আলোচনা হয়েছে।

জাপানের উপর দিয়ে গত মঙ্গলবার উত্তর কোরিয়ার ক্ষেপণাস্ত্র পরীক্ষার জেরে ইতোমধ্যেই বিশ্বনেতারা নিন্দা করেছেন। যদিও দীর্ঘ সময় ধরে জাপানের আকাশ দিয়ে ওই ক্ষেপণাস্ত্র উড়ে গেলেও তা ভূপাতিত করার চেষ্টা করা হয়নি।

উত্তর কোরিয়ার উপর আগে থেকেই জাতিসংঘ বারবার নিষেধাজ্ঞা, সতর্কতা জারি করেছে। তার পরেও একের পর এক ক্ষেপণাস্ত্র পরীক্ষা চালিয়ে আসছে দেশটি। কিমের দেশের ব্যাপারে পরবর্তী নিষেধাজ্ঞা আরোপের ব্যাপারেও থেরেসা মে এবং শিনজো আবে কথা বলেছেন।

 সম্প্রতি জাপানে অবস্থানকালে উত্তর কোরিয়ার উপর আরও চাপ প্রয়োগের জন্য চীনের প্রতি অনুরোধ জানিয়েছেন থেরেসা মে।