জয়ের স্বপ্ন দেখছে বাংলাদেশ

নিউজ ডেস্ক: সুযোগ ছিল দুইদলেরই। ওয়ার্নার-স্মিথের জুটিতে কিছুটা এগিয়ে ছিল অস্ট্রেলিয়া। তবে ঠিক সময় জ্বলে উঠলেন সাকিব। দ্রুত ওয়ার্নার-স্মিথকে ফেরানোর পর ওয়েডকেও সাজঘরে ফেরালেন বাঁহাতি এই স্পিনার। আর তার ঘূর্ণিতেই জয়ের স্বপ্ন দেখা শুরু করেছে বাংলাদেশ।

এ প্রতিবেদন লেখা পর্যন্ত অস্ট্রেলিয়ার সংগ্রহ ৭ উইকেট হারিয়ে ১৯৫ রান। জয়ের জন্য অজিদের প্রয়োজন ৬৬ রানের আর বাংলাদেশের দরকার ৩ উইকেট। নতুন ব্যাটসম্যান হিসেবে উইকেটে নেমেছেন কামিন্স। ম্যাক্সওয়েল ১৪ রান নিয়ে ব্যাট করছেন।

তৃতীয় দিনের মত চতুর্থ দিনের শুরুতেও উইকেটে আছে পাগলাটে ভাব। স্বাভাবিকের চেয়ে বল অনেক বেশি টার্ন করেছে, বল বেশি লাফিয়ে উঠেছে আবার নিচুও হচ্ছে। তবে এরই মধ্যে স্মিথকে নিয়ে গড়েন শতরানের জুটি। আর নিজে তুলে নেন উপমহাদেশে প্রথম সেঞ্চুরি।

তবে এরপরই ঘটে ছন্দপতন। সাকিবের নিচু হওয়া বল বাঁ-হাতি ব্যাটসম্যানের ব্যাট ফাঁকি দিয়ে প্যাডে লাগলে জোরালো আবেদনে সাড়া দেন আম্পায়ার আলিম দার। রিভিউ নিয়েছিলেন ওয়ার্নার কিন্তু পাল্টায়নি আম্পায়ারের সিদ্ধান্ত। ওয়ার্নারের পর স্টিভেন স্মিথকে বিদায় করে বাংলাদেশকে ম্যাচে ফেরান সাকিব। কাট করতে গিয়ে মুশফিকুর রহীমের গ্লাভসবন্দি হন অস্ট্রেলিয়ার অধিনায়ক।

এরপর দ্রুত হ্যান্ডসকমকে ফেরান তাইজুল। অফ স্টাম্পের ঘেঁষে বল করা তাইজুলকে কাট করতে চেয়েছিলেন হ্যান্ডসকম। শরীরের বেশি কাছে থাকায় ঠিক মতো খেলতে পারেননি। ক্যাচ যায় প্রথম স্লিপে। প্রথম প্রচেষ্টায় বল হাতে লেগে উপর উঠে যায়। ঘুরে ডাইভ দিয়ে তা তালুবন্দি করেন সৌম্য।

তাইজুলের পর আবার অজি শিবিরে আঘাত হানেন সাকিব। এলবিডব্লিউর ফাঁদে ফেলেন ম্যাথু ওয়েডকে। একটু নিচু হওয়া বল বাঁহাতি ব্যাটসম্যানের ব্যাট ফাঁকি দিয়ে প্যাডে লাগলে আউট দেন আম্পায়ার আলিম দার। রিভিউ নিয়েছিলেন ওয়েড, কিন্তু পাল্টায়নি সিদ্ধান্ত। এরপর প্রথম ইনিংসে প্রতিরোধ গড়া অ্যাগারকে দ্রুত ফেয়ারন তাইজুল। ফিরতি ক্যাচ নিয়ে বিদায় করেছেন বাঁহাতি অলরাউন্ডারকে।