প্রথম ওয়ানডে ক্রিকেটে ভারতের জয়

নিউজ ডেস্ক: ওপেনার শিখর ধাওয়ানের অপরাজিত ১৩২ ও অধিনায়ক বিরাট কোহলির অপরাজিত ৮২ রানের সুবাদে ডাম্বুলায় সিরিজের প্রথম ওয়ানডেতে স্বাগতিক শ্রীলংকাকে ৯ উইকেটের বড় ব্যবধানে হারালো সফরকারী ভারত। ফলে পাঁচ ম্যাচের সিরিজে ১-০ ব্যবধানে এগিয়ে গেল বিরাট কোহলির দল। আগামী ২৪ আগস্ট পাল্লেকেলেতে অনুষ্ঠিত হবে সিরিজের দ্বিতীয় ওয়ানডে।

শ্রীলংকার ছুড়ে দেয়া ২১৭ রানের টার্গেটে শুরুটা ভালো করতে পারেনি ভারত। পঞ্চম ওভারের শেষ বলে প্রথম উইকেট হারায় টিম ইন্ডিয়া। রান আউটের শিকার হয়ে মাত্র ৪ রান করে সাজ ঘরে ফেরেন ওপেনার রোহিত শর্মা।

দলীয় ২৩ রানে রোহিতের বিদায়ে ক্রিজে যাবার সুযোগ ঘটে অধিনায়ক কোহলির। শুরু থেকেই মারমুখী থাকা ধাওয়ান ঝড়ো গতিতে রান তোলার কাজটা সারছিলেন অনায়াসে। অন্যপ্রান্তে নির্ভার ছিলেন কোহলি। তারপরও দ্রুত উইকেটে সেট হয়ে রান তোলার কাজে মনোযোগী হন কোহলি নিজেও। তাই সময় গড়ানোর সাথে সাথে ভারতের জয়ের পথ পরিষ্কার হতে থাকে। শেষ পর্যন্ত অনায়াসেই বড় জয় পায় ভারত।

টেস্ট সিরিজে দু’টি সেঞ্চুরি হাঁকানো ধাওয়ান ওয়ানডের শুরুতেও ছিলেন উজ্জ্বল। ওয়ানডে ক্যারিয়ারের ১১তম সেঞ্চুরি তুলে শেষ পর্যন্ত ১৩২ রানে অপরাজিত থাকেন তিনি। ৯০ বল মোকাবেলায় ২০টি চার ও ৩টি ছক্কা দিয়ে ইনিংস সাজানো ধাওয়ান হয়েছেন ম্যাচ সেরা।

অন্যপ্রান্তে ওয়ানডে ক্যারিয়ারের ১৪তম হাফ-সেঞ্চুরি তুলে ৮০ রানে অপরাজিত থাকেন কোহলি। ১০টি চার ও ১টি ছক্কায় নিজের ৭০ বলের ইনিংসটি সাজান তিনি।
এর আগে, দিবা-রাত্রির এ ম্যাচে টস হেরে প্রথমে ব্যাটিং-এ নেমে ওপেনার নিরোশান ডিকবেলার ৭৪ বলে ৬৪ রানের সুবাদে ২৫ ওভার শেষ হবার আগে ১ উইকেটে ১৩৯ রানে পৌঁছে যায় শ্রীলংকা। এরপরও ৪৩ দশমিক ২ ওভারেই গুটিয়ে যায় স্বাগতিকরা।

৩৪ রানে ৩ উইকেট নিয়ে ক্যারিয়ার সেরা বোলিং ফিগার দাঁড় করান প্যাটেল। এছাড়া অন্য দুই স্পিনার যুবেন্দার চাহাল, কেদার যাদব ও পেসার জসপ্রিত বুমরাহ ২টি করে উইকেট নেন।

ডিকবেলার ওপেনিং পার্টনার দানুস্কা গুনাথিলাকাকে ব্যক্তিগত ৩৫ রানে থামিয়ে শ্রীলংকার প্রথম উইকেটের জুটি ভাঙ্গেন চাহাল। রিভার্স সুইপ করতে গিয়ে এক্সট্রা-কভারে ক্যাচ দেন গুনাথিলাকা।

অন্য প্রান্ত দিয়ে আক্রমণে এসে গুরুত্বপূর্ণ দু’টি উইকেট নিয়েছেন কেদার। ডিকবেলাকে ৬৪ ও অধিনায়ক উপুল থারাঙ্গাকে ব্যক্তিগত ১৩ রানে শিকার করেন কেদার। দ্বিতীয় উইকেটে কুশল মেন্ডিসের সাথে ৬৫ রান যোগ করেছিলেন ডিকবেলা।

মেন্ডিসকে ব্যক্তিগত ৩৬ রানে বোল্ড করেন প্যাটেল। ১ রান করে ভারতের অধিনায়ক বিরাট কোহলির সরাসরি থ্রোতে আউট হন চামারা কাপুগেদেরা।

স্বীকৃত ব্যাটসম্যানরা শেষ দিকে দ্রুত ফিরে গেলেও লড়াই করার চেষ্টা করেছিলেন সাবেক অধিনায়ক অ্যাঞ্জেলো ম্যাথুজ। কিন্তু শেষ পর্যন্ত ৩৬ রানে অপরাজিত থাকেন ম্যাথুজ।