বড় হয়ে দেশের মানুষের সেবা করতে চাই : শিশু শিল্পী রাইসা

এস.আর.অনি চৌধুরী :: বর্তমান সময়ে শিশু শিল্পী হিসেবে অনেক সাড়া ফেলেছে সাদিকা রহমান রাইসা। মতিঝিল আইডিয়াল স্কুল এন্ড কলেজে ক্লাস সিক্সে পড়ে রাইসা, এই বয়সে রাইসা ৪টি মুভি কাজ শেষ করেছে, এর মধ্য ২টি মুভি মুক্তি পেয়েছে।

জাজ এর “বাদশা” ও লিটন লাকির “শেষ চুম্মন” মুক্তি পেয়েছে রাইশার মুক্তির অপেক্ষাই আরো ২ টা ছবি। তার সাক্ষাৎকার নিয়েছেন প্রতিনিধি এম শাহবান রশীদ চৌধূরী।

*রাইসা কেমন আছো?

রাইসা: হাম ভাইয়া অনেক ভালো

*কয়েকদিন আগে দ্যা লাস্ট কিস শেষ চুম্বন ছবিটা মুক্তি পেলো, ছবিটার কাহিনী তোমাকেই ঘিরে, ছবিটা মুক্তি পাওয়ার পর সাড়া পেয়েছো কেমন?

রাইশা: দ্যা লাস্ট কিস শেষ চুম্বন ছবিটা তে আমি মুল চরিত্রে অভিনয় করি। ছবিটার গান গুলা অনেক সাড়া পেয়েছে। এই ছবিটা আমার প্রথম মুভি ছিলো তাই মন প্রান দিয়ে কাজ করেছি, অনেকেই তো বললো এই মুভির জন্য তুই পুরষ্কার পাবি, এগুলো শুনে অনেক ভালো লাগেৃ

* জাজ এর “বাদশা” তে জিৎ এর ছোট বোন এর চরিত্রে অভিনয় করেছো, জিৎ এর সাথে অভিনয় কিরতে পেরে কেমন লেগেছে তোমার?

রাইসা: জিৎ আংকেল অনেক ভালো। আমাকে অনেক আদর করেছে। আর উনার কাছে তো অনেকগুলো টিপস ও পেয়েছি। জিৎ আংকেল বলেছে তুমি একদিন ভালো অভিনেত্রী হবেই।

*মিডিয়াতে তুমি কবে আসছো?

রাইসা: মিডিয়াতে আগমন ঘটে ২০১২ সালে, প্রতিভাবান মিডিয়ার বিভিন্ন শাখায় সর্ব সময় অনুপ্রেরণা দিয়ে যাচ্ছেন বাবা মা।

*অভিনয়ে আসার পেছনে কার অবদান ছিল?

রাইসা: আমার বাবা মা ভুমিকা অনেক। বাবা ছোট বেলায় আমাকে বুলবুল ললিতকলা একাডেমিতে ভর্তি করে দেন। তারপরে সর্বক্ষেত্রেই আমার বাবা মা আমাকে অনুপ্রেরণা দেন।

*অভিনয় এ কাকে দেখে এসেছো,,তোমার আইডল কে?

রাইসা: আমি ক্লাশ ওয়ান থেকে নাচ, গান, মডেলিং, অভিনয় করতে ভালবাসি। আমার আইডল শাবনুর আন্টি। শাবনুর আন্টিকে আমি আন্টি বলে ডাকি,আমাকে অনেক আদর ও ভালোবাসেন। শাবনুর আন্টি আমার আম্মুর বান্ধবী। তাই ছোট কাল থেকেই আন্টি কাছ থেকে হাসি কান্না অভিনয় গুলি শিখেছি, আমি জাতীয় প্রোগ্রাম গুলিও করে থাকি।

*বড় হয়ে কী হতে চাও?

রাইসা: বড় হয়ে ডাক্তার হতে চাই তারপর অভিনেত্রী।

*পড়াশোনার খবর কী?

রাইসা: অনেক ভালো। আমি মতিঝিল আইডিয়াল স্কুল এ ৬ষ্ট শ্রেনীতে পড়ছি। আর হ্যা আমি কয়েকটি একাডেমী পরিক্ষায় বৃত্তি ও পেয়েছিৃ.।

*তোমার কয়টা ছবি মুক্তির অপেক্ষাই আছে?

রাইসা: ২ টা, খাচা আর সেলুট।

*খাচা আর সেলুট এর সর্ম্পকে কিছু বলো?

রাইসা: খাচা ছবিটা তে আমার মা থাকে জয়া আন্টি আর বাবা আবুল কালাম আজাদ। ১৯৪৭ সালের কাহিনী নিয়ে বানানো।আর সেলুট ছবিটা বঙ্গবন্ধু কে নিয়ে, আর এখানে আমার স্বপ্ন আমি প্রধানমন্ত্রী হবো। “খাঁচা ” এবং “সেলুট” আর হাতে আরো কিছু মুভির কাজ ঈদেরছুটি পর শুটিং হয়ার কথা আছে।

*ছবিতে কিভাবে আসা?

রাইসা: আমি নাটক করেছি, তারপর ছবিতে ডাক পেয়েছি। এখনো বিভিন্ন চ্যানেল এ আমার নাটক প্রচার হয়।

*বর্তমান ব্যস্ততা কী?

রাইসা: কয়েকটা ছবি আছে, নাটক করছি। মিউজিক ভিডিও, ফ্যাশন শো। আর পড়ালেখা নিয়েই ব্যস্ত আছি.। আমার ইচ্ছা বড় হয়ে যাতে এই দেশের নিরিহ মানুষের পাশে থেকে সেবা করতে পারি। একজন সৎ ভাল মানুষ হিসাবে যেন আমি এই বাংলাদেশে গড়ে উঠতে পারি। সেই দোয়া আমার জন্য করবেন।

* ধন্যবাদ তোমাকে রাইসা..

রাইসা: আপনাকেও ধন্যবাদ অনি ভাইয়া।