সিরাজগঞ্জে বন্যায় ২১০ শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে পাঠদান বন্ধ

নিউজ ডেস্ক: সিরাজগঞ্জে বন্যার কারণে ১৭১টি শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান ভবনে পানি উঠেছে। ফলে এগুলোসহ মোট ২১০টি শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে পাঠদান বন্ধ রয়েছে। জেলা মাধ্যমিক ও প্রাথমিক শিক্ষা কার্যালয় সূত্রে এ তথ্য জানা গেছে। এদিকে আজ বুধবার যমুনা নদীতে পানি বৃদ্ধি পেয়ে বিপৎসীমার ১ মিটার ৪৮ সেন্টিমিটার ওপর দিয়ে প্রবাহিত হচ্ছে।

বন্যার কারণে জেলার নয়টি উপজেলার মধ্যে সিরাজগঞ্জ সদর, শাহজাদপুর, কাজীপুর, বেলকুচি ও চৌহালী এই পাঁচটি উপজেলা বেশি বন্যাকবলিত হয়ে পড়েছে। পানি বৃদ্ধি অব্যাহত থাকায় প্রতিদিন নতুন নতুন এলাকা প্লাবিত হচ্ছে।

পানি উন্নয়ন বোর্ডের নির্বাহী প্রকৌশলী সৈয়দ হাসান ইমাম জানান, ‘যমুনা নদীতে পানি আগামী আরও এক বা দুই দিন বৃদ্ধি পেতে পারে। এখন পর্যন্ত বন্যানিয়ন্ত্রণ বাঁধ নিয়ন্ত্রণে আছে। তবে আমরা ভীষণ ঝুঁকিপূর্ণ অবস্থায় রয়েছি।’

জেলা মাধ্যমিক ও প্রাথমিক শিক্ষা কার্যালয় সূত্রে জানা গেছে, ১২১টি সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় ৭০টি উচ্চ মাধ্যমিক বিদ্যালয়সহ মোট ১৭১টি শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের ভবনে পানি উঠে পড়েছে। এগুলোসহ মোট ২১০টি শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে পাঠদান বন্ধ হয়ে গেছে।

জেলা ত্রাণ ও পুনর্বাসন কর্মকর্তা আব্দুর রহিম জানান, এ পর্যন্ত সাড়ে চার হাজার মানুষ আশ্রয়কেন্দ্রসহ বিভিন্ন উঁচু এলাকায় আশ্রয় নিয়েছে। ৫০টি ইউনিয়ন প্লাবিত হয়েছে। এসব ইউনিয়নের প্রায় চার লাখ লোক পানিবন্দী হয়ে পড়েছে। তাদের মধ্যে ত্রাণ সামগ্রী বিতরণ করা হয়েছে।