ঢাবিতে শোক দিবসের পোস্টার ছেড়ায় ১১ ছাত্রকে পুলিশে সোপর্দ

নিউজ ডেস্ক: ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের (ঢাবি) বিজয় একাত্তর হলে ১৫ আগস্টের পোস্টার ছিঁড়ে ফেলার দায়ে ১১জন আবাসিক শিক্ষার্থীকে পুলিশে সোপর্দ করেছে হল প্রশাসন।সোমবার হলের পুরাধ্যক্ষ অধ্যাপক ড. এ জে এম শফিউল আলম ভূঁইয়া হলের সিসিটিভির ফুটেজ দেখে এদের শনাক্ত করে শাহবাগ থানায় সোপর্দ করেন।

এসময় তাদের কাছ থেকে ১১টি অ্যন্ড্রয়েড ফোন, দুটি ল্যাপটপ এবং একটি ডেক্সটপও জব্দ করা হয়। এগুলো কর্তৃপক্ষ তদন্তের স্বার্থে চেক করবে বলে জানান। পুলিশে সোপর্দকৃত ছাত্ররা হলেন-ব্যাংকিং বিভাগের আসিফ হোসেন, ইসলামের ইতিহাস বিভাগের রিয়াজ উদ্দিন, মনোবিজ্ঞান বিভাগের আজিম উদ্দীন, ইসলামিক স্টাডিজ বিভাগের মাহমুদুল হাসান, আন্তর্জাতিক সম্পর্ক বিভাগের মোকসেদুল আলম ও এহসান আহমেদ, সমাজবিজ্ঞান বিভাগের শাহীনুজ্জামান, ট্যুরিজম অ্যান্ড হসপিটালিটি বিভাগের ওবাইদুল হক ভুইয়া, পালি ও বুদ্ধিস্ট বিভাগের মনির হোসেন এবং হিসাববিজ্ঞান বিভাগের বায়েজিদ ইসলাম।

সিসি ফুটেজে শনাক্তকরণ শেষে অধ্যাপক ড. এ জে এম শফিউল আলম ভূঁইয়া সাংবাদিকদের বলেন, হলের আবাসিক শিক্ষদের মাধ্যমে আমি বিষয়টি সম্পর্কে জানি এবং হল ছাত্রলীগ অভিযোগ করে আমার কাছে বিচার দাবি করে। আমি সরেজমিনে সবকিছু পর্যবেক্ষণ করি।

সিসি ফুটেজ দেখে কয়েকজনকে শনাক্ত করি। কয়েকজনের পোস্টার ছেড়ার ধরণ রহস্যজনক মনে হয়েছে বলে পুলিশের কাছে হস্তান্তর করা হয়েছে। তারা যদি অভ্যাসবসত করে থাকে তাহলে হয়রানির শিকার হবে না। আর যদি উদ্দেশ্য প্রণোদিতভাবে করে তাহলে হল থেকে তাদের বের করে দেয়া হবে।

তিনি বলেন, সবার মধ্যে রাজনৈতিক বিতর্ক থাকতে পারে। কিন্তু জাতির জনক বঙ্গবন্ধুকে নিয়ে কোন বিতর্ক থাকতে পারে না। এসময় তিনি বলেন, ১৫ আগস্টের মতো দিনে যারা এই ধরণের অসভ্য কাজ করেছে তাদের বিরুদ্ধে কঠোর ব্যবস্থা নিবে হল প্রশাসন।