মঠবাড়িয়া ডাঃ রুস্তুম আলী আলী ফরাজী কলেজে নবীবরন

পিরোজপুর প্রতিনিধি: পিরোজপুরের মঠবাড়িয়া ঐতিহ্যবাহী শিক্ষা প্রতিস্ঠান ডাঃ রুস্তুম আলী ফরাজী বিশ্ববিদ্যালয় কলেজের একাদশ শ্রেনীতে ভর্তিকৃত শিক্ষার্থীদের নবীনবরন অনুষ্ঠান শনিবার সকালে কলেজ অডিটরিয়মে অনুষ্টিত হয়েছে। উক্ত নবীনবরন অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি ছিলেন,পিরোজপুর( ৩) মঠবাড়িয়া আসনের সংসদ সদস্য কলেজের প্রতিস্ঠাতা ও পরিচালনা পর্ষদের সভাপতি আলহাজ্ব ডাঃ মোঃ রুস্তুম আলী ফরাজী।

বিশ্ববিদ্যালয় কলেজের অধ্যক্ষ শাহা আলম মারুফের সভাপতিত্ব বক্তব্য রাখেন, বাংলা বিভাগের বিভাগীয় প্রধান মাসুমা বেগম, ইসলামী শিক্ষা বিভাগের বিভাগীয় প্রধান আবুল বাসার,ইসলামের ইতিহাস বিভাগের প্রভাষক মোতালেব হোসেন,দ্বাূদশ শ্রেনীর ছাএী ফাতিমা ইসলাম, ইব্রাহীম ফরাজী ও নবীন একাদশ শ্রেনীর ছাএী ফাতিমা প্রমুখ। প্রধান অতিথির বক্তৃতায় ডাঃ রুস্তুম আলী ফরাজী বলেন, কলেজটি প্রতিস্ঠার সময় আমার ঘোষনা ছিলো এ কলেজটি হবে রাজনীতি মুক্ত। এ কলেজে ভর্তি হওয়া যেমন সোজা তেমনি বহিঃ স্কার হওয়া ও সোজা।

প্রতিটি শিক্ষাঙ্গন থেকে সন্এাস, মাদক ও বিভিন্ন অফিস থেকে দূর্নীতিমুক্ত করে মঠবাড়িয়াকে আলোকিত মঠবাড়িয়া হিসেবে গড়তে হবে। তানাহলে বঙ্গবন্ধুর সোনার বাংলা স্বপ্ন বাস্তবায়ন হবে না। বর্তমানে আপদ ও বিপদ হচ্ছে উন্নয়নের অন্তরায়।আপদ হচ্ছে সন্এাস আর বিপদ হচ্ছে মাদক। এ দুইটি যতদিন পযর্ন্ত তারানো না যাবে ততদিন পর্যন্ত দেশের উন্নয়ন হবে না।তিনি বলেন, জাতীর জনক বঙ্গবন্ধু বাংঙ্গালীর স্বাধীনতা আন্দোলনের জন্য ২৩ টি বছর জেল কেটেছেন।বঙ্গবন্ধুর ৭ ই মার্চের ভাষনই ছিলো স্বাধীনতার ঘোষনা।

তিনি আরো বলেন, আমার জনপ্রিয়তায় একটি মহল ঈর্ষান্বিত হয়ে অপপ্রচার চালাচ্ছে। আমি চ্যাঁলেন্জ করলাম,ডিজিএফআই,এনএস,আই,দূদক ও সাংবাদিকরা রয়েছেন যদি কেউ ১ টি টাকার দূর্নীতি করেছি প্রমান করতে পারলে এমপি থেকে পদত্যাগ করবো। তিনি সরকারের উদ্দেশ্যে বলেন, যে সব সেক্টরে দূর্নীতি হচ্ছে সেসব সেক্টরের একটি মিনিস্টারির মন্এী বানিয়ে আমাকে দায়িত্ব দিন ৭ দিনের মধ্যে দূর্নীতি বন্ধ করতে না পারলে পদত্যাগ করবো।