শাহবাগের ঘটনায় ১২০০ জনকে আসামি করে পুলিশের মামলা

নিউজ ডেস্ক: রুটিনসহ পরীক্ষার তারিখ ঘোষণার দাবিতে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের (ঢাবি) অধিভুক্ত সাতটি কলেজের শিক্ষার্থীদের শাহবাগে অবস্থান কর্মসূচিতে পুলিশি বাধার পর ওই শিক্ষার্থীদের সঙ্গে পুলিশের সংঘর্ষ ও ধাওয়া-পাল্টা ধাওয়ার ঘটনায় মামলা হয়েছে।

পুলিশ বাদীয় হয়ে শুক্রবার দুপুরে মামলাটি দায়ের করেছে। মামলায় ১২০০ জনকে আসামি করা হয়েছে। মামলা নং ২৬।

মামলা দায়েরের বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন শাহবাগ থানার পরিদর্শক (তদন্ত) জাফর আলী।

তিনি জাগো নিউজকে বলেন, পুলিশের কাজে বাধা, গাড়ি ভাঙচুর, হত্যার উদ্দেশ্যে পুলিশের উপর হামলার অভিযোগে মামলাটি দায়ের করা হয়েছে। মামলার আসামি অজ্ঞাত ১২০০ জন। মামলার তদন্ত করবেন এসআই দেবরাজ।

রুটিনসহ পরীক্ষার তারিখ ঘোষণার দাবিতে পূর্ব ঘোষিত কর্মসূচি অনুযায়ী বৃহস্পতিবার সকাল ১০টা থেকে শাহবাগে অবস্থান নেন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের (ঢাবি) অধিভুক্ত রাজধানীর সাতটি কলেজের শিক্ষার্থীরা।

ওই আন্দোলন থেকে পুলিশের সঙ্গে সংঘর্ষে তিনজন আহত হন। ১১ শিক্ষার্থীকে আটকও করা হয়।

পুলিশের কাঁদানি গ্যাসে শাহবাগ থেকে ছত্রভঙ্গ হয়ে যাওযার পর আন্দোলনকারী শিক্ষার্থীরা ঢাকা কলেজের সামনে অবস্থান নেন। এতে সায়েন্সল্যাব থেকে নীলক্ষেত মোড় পর্যন্ত দুই দিকের সড়কে যানবাহন চলাচল বন্ধ হয়ে যায়।

এ দিকে শিক্ষার্থীদের এ আন্দোলনকে ষড়যন্ত্রমূলক আখ্যা দিয়েছেন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য অধ্যাপক আ আ ম স আরেফিন সিদ্দিক। তিনি বলেছেন, কোনো স্বার্থান্বেষী মহল শিক্ষার্থীদের ব্যবহার করছে।

যে দাবিতে আন্দোলন
অধিভুক্ত হওয়া কলেজগুলোর ব্যাপারে নীতিমালা প্রণয়ন ও প্রকাশ (একাডেমিক সিলেবাস, পরীক্ষা পদ্ধতি, প্রশ্নের ধরন, প্রশ্নের মানবণ্টন, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের সঙ্গে কলেজসমূহের সম্পর্ক ইত্যাদি); সম্মান ২য় ও ৪র্থ বর্ষের শিক্ষার্থীদের মৌখিক/ব্যবহারিক পরীক্ষা অল্প সময়ে সম্পন্ন করে দ্রুত ফল প্রকাশ; সম্মান ৩য় বর্ষ এবং মাস্টার্স শেষ পর্বের পরীক্ষা দ্রুত সময়ের মধ্যে গ্রহণ; ২০১৪-১৫ শিক্ষাবর্ষের মাস্টার্স শেষ পর্বের ভর্তি কার্যক্রম দ্রুত সম্পন্ন করা; ডিগ্রির আটকে থাকা সব বর্ষের পরীক্ষা দ্রুত সম্পন্ন করা; অধিভুক্ত কলেজগুলোর সব তথ্য সংবলিত একটি ওয়েবসাইট তৈরি; শিক্ষার মানোন্নয়ন এবং সেশনজট নিরসনে যথাযথ ব্যবস্থা নেয়া।