এমপি লিটন হত্যা মামলায় সাক্ষ্যগ্রহণ শুরু

নিউজ ডেস্ক: গাইবান্ধা-১ আসনের সংসদ সদস্য মনজুরুল ইসলাম লিটন হত্যার মূল পরিকল্পনাকারী হিসেবে অভিযুক্ত সাবেক সেনা কর্মকর্তা আবদুল কাদের খানের বিরুদ্ধে করা মামলার সাক্ষ্য গ্রহণ মঙ্গলবার থেকে শুরু হয়েছে।

দুপুরে গাইবান্ধার স্পেশাল ট্রাইব্যুনাল আদালত-১ এর বিচারক রাশেদা সুলতানা ওই সাক্ষ্য গ্রহণ করেন। এ সময় আবদুল কাদের খানকে আদালতে হাজির করা হয়।

আসামিপক্ষের আইনজীবী জাহাঙ্গীর আলম মঙ্গলবার মুঠোফোনে বলেন, মঙ্গলবার অস্ত্র মামলার অভিযোগকারী ও এমপি হত্যা মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা পুলিশ পরিদর্শক আবু হায়দার মো. আশরাফুজ্জামানের সাক্ষ্যগ্রহণ করা হয়। অপর সাক্ষীদের সাক্ষ্যগ্রহণ পরবর্তী তারিখে গ্রহণ করা হবে।

আবু হায়দার মো. আশরাফুজ্জামান আদালতকে জানান, এমপি মনজুরুল ইসলাম লিটন হত্যায় তিনটি অস্ত্র ব্যবহার করা হয়। এরমধ্যে একটি অস্ত্র আবদুল কাদের খান নিজে থানায় জমা দিয়েছেন। দ্বিতীয় অস্ত্রটি কাদের খানের স্বীকারোক্তি অনুযায়ী তার গ্রামের বাড়ি থেকে উদ্ধার করা হয়। কিন্তু তার স্বীকারোক্তি মোতাবেক তৃতীয় অস্ত্রটির সন্ধান এখনও পাওয়া যায়নি।

এরআগে অস্ত্র আইনে কাদের খানের বিরুদ্ধে আদালতে অভিযোগপত্র দাখিল করা হয়। সরকারপক্ষে মামলা পরিচালনা করেন শফিকুল ইসলাম।

গতবছরের ৩১ ডিসেম্বর গাইবান্ধা-১ (সুন্দরগঞ্জ) আসনের আওয়ামী লীগ দলীয় সংসদ সদস্য মনজুরুল ইসলাম লিটন সুন্দরগঞ্জের নিজ বাড়িতে দুর্বৃত্তদের গুলিতে নিহত হন। এ ঘটনায় মনজুরুল ইসলামের বড়বোন ফাহমিদা বুলবুল বাদী হয়ে অজ্ঞাত ৪-৫ জনকে আসামি করে চলতি বছরের ১ জানুয়ারি সুন্দরগঞ্জ থানায় একটি হত্যা মামলা দায়ের করেন। পরে কাদের খানসহ চারজনকে গ্রেফতার করা হয়। তারা আদালতে স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি দেন।