ঈশ্বরদীতে জাতীয় মৎস্য সপ্তাহের উদ্বোধন

ঈশ্বরদী (পাবনা) সংবাদদাতা: মাছ চাষে গড়বো দেশ বদলে দেব বাংলাদেশ এই প্রতিপাদ্য বিষয়কে সামনে রেখে উত্তেজনার মধ্য দিয়ে জাতীয় মৎস্য সপ্তাহের উদ্বোধন হয়েছে। গতকাল বুধবার দুপুরে উপজেলা চত্বর থেকে একটি বর্ণাঢ্য রালি বের করে শহরের প্রধান প্রধান সড়ক প্রদক্ষিণ শেষে মিলনায়তনে আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়। উক্ত অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত থাকার কথা ছিল মাননীয় ভূমিমন্ত্রী শামসুর রহমান শরীফ ডিলু এমপির। ব্যস্ততার কারণে তিনি অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন না।

উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা নাছরিন আক্তারের সভাপতিত্বে বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন, উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যান আসাদুজ্জামান রিপন, মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান মাহমুদা বেগম, উপজেলা সহকারি কমিশনার (ভূমি) শিমুল আক্তার, ঈশ্বরদী থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) আজিম উদ্দিন ও সাঁড়া ইউপি চেয়ারম্যান ইমদাদুল হক রানা সরদার। উপজেলা সিনিয়র মৎস্য কর্মকর্তা অতিরিক্ত দায়িত্ব নাজমুল হুদা স্বাগত বক্তব্য রাখেন।

বঙ্গবন্ধু জাতীয় মৎস্য পদক প্রাপ্ত চাষি হাবিবুর রহমান হাবিব, এবারের মৎস্য সপ্তাহে রেনু পোনা উৎপাদনের জন্য পুরষ্কারে মনোনিত আবু বাসার, কার্প জাতীয় মিশ্র মৎস্য চাষের জন্য পুরষ্কারে মনোনিত আবুল কালাম আজাদ মালিথা ও সিআইজি ঈশ্বরদী উপজেলা সভাপতি মুরাদ মালিথাকে মঞ্চে না ডাকার কারণে সভা কক্ষে ব্যাপক উত্তেজনা সৃষ্টি হয়।

বক্তারা বলেন, মাছ চাষে গড়বো দেশ বদলে দেব বাংলাদেশ। পানি না থাকলে যেমনি মাছ চাষ করা অসম্ভব। ঠিক তেমনি ভাবে মাছ চাষিরা হচ্ছে অলংকার এই অলংকার মঞ্চে না থাকলে পুরো মঞ্চই অন্ধকার। আজকে মৎস্য সপ্তাহ পালন হচ্ছে আর জাতীয় পর্যায়ের চাষিদের সম্মান না দিয়ে অবজ্ঞা করা হচ্ছে। বক্তারা আরও বলেন, মৎস্য চাষিরা না থাকলে ঈশ্বরদীতে মৎস্য কর্মকর্তার কোন প্রয়োজন নেই। মৎস্য চাষিরা আছে বলেই আপনারা চাকরি করে খাচ্ছেন। যারা মাছ চাষ করেন আপনারা আপনাদের পুকুরের মাছকে সুষম খাদ্য দিবেন। তাহলে মাছ তারাতারি বেড়ে উঠবে এবং মানুষ ভালো মাছ খেতে পারবে।