সিআইডির ২ কর্মকর্তা ফিলিপাইন যাচ্ছেন আজ

নিউজ ডেস্ক:  বাংলাদেশ ব্যাংকের রিজার্ভ থেকে চুরি হওয়া অর্থ ফেরতের বিষয়ে তদন্ত করতে আজ মঙ্গলবার ফের ফিলিপাইন যাচ্ছেন পুলিশের অপরাধ ও তদন্ত বিভাগের (সিআইডি) দুই কর্মকর্তা।

তারা হলেন, বিশেষ পুলিশ সুপার মোল্যা নজরুল ইসলাম ও অতিরিক্ত পুলিশ সুপার রায়হান উদ্দিন খান। তারা দুজনই তদন্তের সঙ্গে প্রত্যক্ষভাবে সংশ্লিষ্ট।

এর আগে বিষয়টি তদন্ত করতে সিআইডির কয়েকজন কর্মকর্তা ফিলিপাইনে গিয়েছিলেন।

সিআইডি সূত্রে জানা গেছে, চারদিন ব্যাপী এই সফরে তারা ফিলিপাইনের সেন্ট্রাল ব্যাংকের ডিপার্টমেন্ট অব জাস্টিস, অ্যান্টি মানি লন্ডারিং কাউন্সিল (এএমএলসি), প্রেসিডেনশিয়াল কমিশন অন গুড গভর্নেন্স (পিসিজিজি) এবং সোলিসিটর জেনারেল অফিসের সঙ্গে একাধিক সভায় অংশ নেবেন।

এ বিষয়ে জানতে চাইলে সিআইডির এক কর্মকর্তা জানান, রিজার্ভ চুরির তদন্তে যেসব আসামির নাম এসেছে তাদের বিষয়ে ফিলিপাইনকে অবগত করা হবে।

২০১৬ সালের ৪ ফেব্রুয়ারি সুইফট সিস্টেম ব্যবহার করে ভুয়া বার্তা পাঠিয়ে যুক্তরাষ্ট্রের ফেডারেল রিজার্ভ ব্যাংক অব নিউইয়র্ক থেকে বাংলাদেশ ব্যাংকের প্রায় ১০ কোটি ১০ লাখ ডলার চুরি হয়। এ অর্থের একটি বড় অংশ ফিলিপাইনের রিজাল কমার্শিয়াল ব্যাংকিং কর্পোরেশনের (আরসিবিসি) মাধ্যমে ফিলিপাইনে চলে যায়।

এ ঘটনায় প্রতিষ্ঠানটির হিসাব ও বাজেট শাখার যুগ্ম পরিচালক জুবায়ের বিন হুদা বাদী হয়ে একটি মামলা করেন।

সিআইডির তদন্ত সংশ্লিষ্ট সূত্র জানায়, এ পর্যন্ত ফিলিপাইনের ৩০ জনকে চিহ্নিত করা হয়েছে। তারা সবাই ফিলিপাইনের বিভিন্ন ব্যাংকের কর্মকর্তা ও ভুয়া হিসাবধারী। তাদের মধ্যে বেশ কয়েকজনকে রিজার্ভ চুরির মামলায় সাক্ষী করা হবে। বাকিদের আসামি করে অভিযোগপত্র দেওয়া হবে। এছাড়া বাংলাদেশের রিজার্ভ চুরির সঙ্গে হংকং, ম্যাকাও ও ফিলিপাইনের ২৩ জন জুয়াড়িকেও চিহ্নিত করা হয়েছে। তাদের সবাইকে এ মামলায় আসামি করা হবে।