পাইকারি ও খুচরা বাজারে পেঁয়াজের দাম কমেছে

পাইকারি ও খুচরা বাজারে পেঁয়াজের দাম কমেছে
পাইকারি ও খুচরা বাজারে পেঁয়াজের দাম কমেছে

নিউজ ডেস্ক:  রমজানকে সামনে রেখে হিলি স্থল বন্দরে পেঁয়াজের আমদানি বাড়ায়, সপ্তাহের ব্যবধানে দিনাজপুরসহ সারা দেশে পাইকারি ও খুচরা বাজারে দাম কমতে শুরু করেছে। পাইকারিতে কেজি প্রতি ৩-৬ টাকা করে কমলেও খুচরাতে কমেছে ৮-১০ টাকা করে। দাম কমায় স্বস্তি ফিরেছে সাধারণ মানুষের মধ্যে। পেঁয়াজ আমদানির এমন ধারা অব্যাহত থাকলে, রমজানে দাম বাড়ার আশংকা নেই বলে জানিয়েছেন ব্যবসায়ী ও আমদানিকারকরা। গত সাত দিনে হিলি স্থলবন্দর দিয়ে সাড়ে তিন হাজার টন পেঁয়াজ আমদানি হয়েছে।

সরেজমিন দিনাজপুরের বিভিন্ন বাজার ও আমদানিকারকদের গুদাম ঘুরে দেখা গেছে, এক সপ্তাহ আগে পাইকারিতে প্রতি কেজি ভারতীয় পেঁয়াজ ২৩ থেকে ২৬ টাকা কেজি দরে বিক্রি হয়েছে। বর্তমানে ২০ থেকে ২৩ টাকা করে বিক্রি হচ্ছে। খুচরাতে একসপ্তাহ আগে প্রতি কেজি পেঁয়াজ ২৮ থেকে ৩০ টাকা বিক্রি হলেও বর্তমানে তা কমে ২০ থেকে ২২ টাকা দরে বিক্রি হচ্ছে। এছাড়া দেশীয় পেঁয়াজ বিক্রি হচ্ছে ২৮ থেকে ৩০ টাকা কেজি দরে।

দিনাজপুর শহরের বাহাদুর বাজারে পেঁয়াজ কিনতে আসা গৃহবধূ রেশমা বেগম বলেন, কিছুদিন আগে পেঁয়াজের দাম বেশ বেড়ে গিয়েছিল। এ কারণে আমাদের মতো নিম্ন আয়ের মানুষজন বেশ দুর্ভোগে পড়ে। এখন পেঁয়াজের দাম অনেকটা কমে এসেছে। এটি সব সময় সহনীয় পর্যায়ে রাখার দাবি জানান তিনি। শহরের চক বাজারের পেঁয়াজ বিক্রেতা বিনোদ বিহারী বলেন, আগে বন্দর দিয়ে ভারত থেকে পেঁয়াজ আমদানি বন্ধ থাকায়, বাজার শুধুমাত্র দেশীয় পেঁয়াজের ওপর নির্ভরশীল ছিল। এ কারণে পেঁয়াজের দাম কিছুটা বাড়তি ছিল।

তবে বর্তমানে হিলি স্থলবন্দর দিয়ে পেঁয়াজ আমদানি হওয়ায় ও রমজানকে ঘিরে বাড়তি পেঁয়াজ আসায়, বাজারে পেঁয়াজের সরবরাহ বেড়েছে। এতে পেঁয়াজের দাম কমতে শুরু করেছে।