কানাডায় বঙ্গবন্ধুর জন্মবার্ষিকী ও জাতীয় শিশু দিবস উদযাপন

কানাডায় বঙ্গবন্ধুর জন্মবার্ষিকী ও জাতীয় শিশু দিবস উদযাপন
কানাডায় বঙ্গবন্ধুর জন্মবার্ষিকী ও জাতীয় শিশু দিবস উদযাপন

নিউজ ডেস্ক : কানাডার অটোয়ায় বাংলাদেশ হাইকমিশনের উদ্যোগে ১৭ মার্চ জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ১০১তম জন্মবার্ষিকী ও জাতীয় শিশু দিবস ২০২১ উদযাপন করা হয়।

অনুষ্ঠানের শুরুতে অটোয়ায় বাংলাদেশ হাইকমিশনার ড. খলিলুর রহমানের নেতৃত্বে জাতীয় সংগীতের মাধ্যমে জাতীয় পতাকা উত্তোলন করা হয়। পতাকা উত্তোলনের পর বঙ্গবন্ধুসহ সকল শহিদের রুহের মাগফেরাত কামনা করে বিশেষ মোনাজাত করা হয়।

অনুষ্ঠানে বঙ্গবন্ধুর প্রতিকৃতিতে পুষ্পস্তবক অর্পণ করে শ্রদ্ধা জানানো হয় এবং রাষ্ট্রপতি, প্রধানমন্ত্রী, পররাষ্ট্র মন্ত্রী ও পররাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রীর বাণী পাঠ করা হয়।

হাইকমিশনার ড. খলিলুর রহমানের সভাপতিত্বে ভার্চুয়াল আলোচনা সভায় অতিথিদের মধ্যে ছিলেন সাবেক মন্ত্রী ও বাণিজ্য মন্ত্রণালয় সম্পর্কিত সংসদীয় স্থায়ী কমিটির সভাপতি তোফায়েল আহমেদ, জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের জন্মশতবার্ষিকী উদযাপন জাতীয় বাস্তবায়ন কমিটির প্রধান সমন্বয়ক ড. কামাল আব্দুল নাসের চৌধুরী, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ভূতত্ত্ব বিভাগের অধ্যাপক ডঃ মোঃ হোসেন মনসুর, কানাডা আওয়ামী লীগের সভাপতি গোলাম মাহমুদ মিয়া, সাধারণ সম্পাদক আজিজুর রহমান প্রিন্স।

আলোচনা সভায় বক্তারা বঙ্গবন্ধুর সংগ্রামী জীবন ও তাঁর জীবনাদর্শ তুলে ধরেন। বঙ্গবন্ধুর জন্ম না হলে বাংলাদেশের জন্ম হতো না। বঙ্গবন্ধুর অবিসংবাদিত নেতৃত্বে শুধু তৎকালীন সময়েই নয়, এ ধরনের নেতৃত্ব সমসাময়িক বিশ্বে বিরল। বক্তারা বলেন, বঙ্গবন্ধুর মন ছিল হিমালয়ের মতো বিশাল এবং নেতৃত্ব দানে তাঁর সিদ্ধান্ত ছিল পর্বতের মতো অটল।

তিনি সব সময় সাধারণ মেহনতী মানুষের পক্ষে কথা বলেছেন এবং কাজ করে গেছেন। এজন্য শুধু বাংলাদেশেই নয়, আন্তর্জাতিক ক্ষেত্রেও রাষ্টনায়ক হিসেবে তাঁকে বিশ্ব নেতৃবৃন্দ অকুন্ঠ সমর্থন দিয়েছিলেন।

আলোচনা শেষে সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয় এবং শিশু-কিশোরদের রচনা ও চিত্রাঙ্কন প্রতিযোগিতায় বিজয়ীদের মাঝে পুরস্কার প্রদান করা হয়।