বাংলাদেশ বিনির্মাণে অটোমোবাইল শিল্পখাত গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখবে : শিল্পমন্ত্রী

উন্নত আয়ের বাংলাদেশ বিনির্মাণে অটোমোবাইল শিল্পখাত গুরুত্বপূর্ণ-শিল্পমন্ত্রী
উন্নত আয়ের বাংলাদেশ বিনির্মাণে অটোমোবাইল শিল্পখাত গুরুত্বপূর্ণ-শিল্পমন্ত্রী

নিউজ ডেস্ক: শিল্পমন্ত্রী নূরুল মজিদ মাহমুদ হুমায়ূন এমপি বলেন, ২০৩০ সালের মধ্যে বাংলাদেশকে আঞ্চলিক অটোমোবাইল শিল্প উৎপাদনের কেন্দ্রে উন্নীত করার পরিকল্পনা গ্রহণ করা হয়েছে। এ লক্ষ্য অর্জনে সরকার অটোমোবাইল শিল্প উন্নয়নে সর্বাধিক গুরুত্ব দিচ্ছে।

তিনি সরকারের পাশাপাশি অটোমোবাইল শিল্প উদ্যোক্তাদেরকেও এগিয়ে আসার আহবান জানান। তিনি বলেন, বাংলাদেশ অটোমোবাইল শিল্পে স্থানীয় চাহিদা সৃষ্টির পাশাপাশি দেশজ উৎপাদিত অটোমোবাইল পণ্য সামগ্রীর রপ্তানি সক্ষমতা বৃদ্ধি পাচ্ছে। ২০৩০ সালে টেকসই উন্নয়ন লক্ষ্যমাত্রা অর্জন ও ২০৪১ সালের উন্নত আয়ের বাংলাদেশ বিনির্মাণে অটোমোবাইল শিল্পখাত গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখবে বলে তিনি আশাবাদ ব্যক্ত করেন।

শিল্পমন্ত্রী বৃহস্পতিবার ইফাদ গ্রুপ কর্তৃক আয়োজিত ইফাদ অটোস লিমিটেড বাংলাদেশে বিশ্বমানের এয়ার কন্ডিশন বাস ও কমার্সিয়াল বাসের বডি এবং ট্রাকের কেবিন তৈরির উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে এসব কথা বলেন।

ইফাদ গ্রুপের চেয়ারম্যান ইফতেখার আহমেদ টিপু অনুষ্ঠানের সভাপতিত্ব করেন। দূর্যোগ ব্যবস্থাপনা ও ত্রাণ প্রতিমন্ত্রী ডা. এনামুর রহমান এমপি, মাননীয় সংসদ সদস্য আলহাজ্ব বেনজির আহমেদ এবং বাংলাদেশ ট্রেড এন্ড ট্যারিফ কমিশনের চেয়ারম্যান, জনাব মুন্সী শাহাবুদ্দিন আহমেদ এতে বিশেষ অতিথি ছিলেন এবং বক্তব্য রাখেন। এতে অন্যদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন আর্থিক প্রতিষ্ঠানের ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তাগণ ও ব্যবসায়ী নেতৃবৃন্দ মালিক ও শ্রমিক সংগঠনের নেতা-কর্মীগণসহ ইফাদ গ্রুপের ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তাগণ। ইফাদ অটোস ইন্ডাস্ট্রিয়াল পার্ক, ধামরাই, ঢাকায় এ অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়।

বিশেষ অতিথির বক্তব্যে দূর্যোগ ব্যবস্থাপনা ও ত্রাণ প্রতিমন্ত্রী ডা. এনামুর রহমান এমপি বলেন, বর্তমান সরকার শিল্পবান্ধব। যার ফলে সাভার ও ধামরাই এ শিল্পায়ন হয়েছে, এলাকার উন্নয়ন হয়েছে এবং এ অঞ্চলের দারিদ্র্য বিমোচন হয়েছে। তিনি শিক্ষাব্যবস্থা/ প্রতিষ্ঠান/অটোমোবাইল ইঞ্জিনিয়ার বিষয় বিভাগ খোলা আহ্বান জানান।

বিশেষ অতিথির বক্তব্যে সংসদ সদস্য আলহাজ্ব বেনজির আহমেদ বলেন, দেশে যেভাবে শিল্প উন্নয়ন ঘটছে, তাতে ২০৪১ সালের আগেই বাংলাদেশ উন্নত আয়ের দেশে পরিণত হবে। তিনি নতুন প্রজন্মকে টেকনিক্যালি আরো সাউন্ড হওয়ার আহ্বান জানান।

সভাপতির বক্তব্যে ইফাদ গ্রুপের চেয়ারম্যান ইফতেখার আহমেদ টিপু বলেন, বেসরকারি উদ্যোগে ইতিহাসে নব দিগন্তের সূচনা করেছে ইফাদ অটোস লিমিটেড। তিনি বলেন, বাংলাদেশ বিগত বছরে ভারী যানবাহনের ক্ষেত্রে এক বৈপ্লবিক পরিবর্তন সাধিত হয়েছে। বিষয়টি বিবেচনায় রেখে ইফাদ অটোস লিমিটেড বৈদেশিক মুদ্রা সাশ্রয় ও দেশে শিল্পবান্ধব অবস্থার প্রেক্ষিতে এই কারখানা স্থাপন করেছে। জাতীয় অর্থনীতিতে এই সংযোজন কারখানা বিশেষ ভূমিকা পালন করার পাশাপাশি দেশীয় কাঁচামালের ব্যবহার, দক্ষ কর্মী সৃষ্টিসহ নতুন কর্মসংস্থানের ব্যবস্থা বৃদ্ধিতে সহায়তা করবে।

বছরে ১২ হাজার গাড়ী সংযোজনের লক্ষ্য নিয়ে ২০১৭ সালে ইফাদ অটোস লিমিটেডের সংযোজন কারখানা চালু হয়। কারখানাটিতে ভারতের অশোক লেল্যান্ড ব্র্যান্ডের বিভিন্ন মডেলের গাড়ী তৈরি হচ্ছে।

ঢাকানিউজ২৪.কম