ডোপ টেস্ট বাধ্যতামূলক: মুক্তিযুদ্ধ বিষয়কমন্ত্রী

ডোপ টেস্ট বাধ্যতামূলক: মুক্তিযুদ্ধ বিষয়কমন্ত্রী
ডোপ টেস্ট বাধ্যতামূলক: মুক্তিযুদ্ধ বিষয়কমন্ত্রী

নিউজ ডেস্ক: মুক্তিযুদ্ধবিষয়ক মন্ত্রী আ ক ম মোজাম্মেল হক ও আইনশৃঙ্খলাসংক্রান্ত মন্ত্রিসভা কমিটির সভাপতি বলেছেন, এখন থেকে সব পর্যায়ের সরকারি চাকরির নিয়োগের ক্ষেত্রে ডোপ টেস্ট বাধ্যতামূলক করা হয়েছে। অভিযোগ পেলে কর্মরতদের টেস্ট করা হবে। তবে গড়ে সবারটা করা হবে না। তিনি বলেন, ভবিষ্যতে শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে ভর্তির ব্যাপারেও এই টেস্ট বাধ্যতামূলক করা হবে।

বুধবার কমিটির পঞ্চম সভা শেষে সাংবাদিকদের ব্রিফিংকালে তিনি এসব কথা বলেন। সচিবালয়ে স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের সভাকক্ষে এ বৈঠক অনুষ্ঠিত হয়।

মন্ত্রী বলেন, সভায় দেশে সোশ্যাল মিডিয়াগুলোতে নজরদারি করার বিষয়ে আলোচনা হয়েছে। তিনি জানান, বাংলাদেশ টেলিযোগাযোগ নিয়ন্ত্রণ কমিশনকে (বিটিআরসি) তারা এ বিষয়ে মনিটরিং করার কথা বলবেন।

আ ক ম মোজাম্মেল হক বলেন, দেশকে মাদকমুক্ত করতে দুটি পাইলট প্রজেক্ট হাতে নিয়েছে সরকার। পাশাপাশি আইনশৃঙ্খলা বাহিনীকে তিনটা বিষয় মাদকসেবী, মাদক বিক্রেতা ও আশ্রয় দাতাদের চিহ্নিত করতে বলা হয়েছে। মাদকের গডফাদারদের তালিকা করার জন্য গোয়েন্দা সংস্থা কাজ করছে।

তিনি বলেন, ইয়াবায় দুই-চার বছরে মানুষ অকেজো হয়ে যায়। এই সংকট সমাধানে আইনশৃঙ্খলা বাহিনীকে পরামর্শ দিয়েছি। মাদকমুক্ত করার জন্য দুটি জেলায় পাইলট প্রকল্পের সিদ্ধান্ত নিয়েছি এবং একটা কমিটি করা হবে। দুটি জোনে কাজ হবে। পর্যায়ক্রমে সারা দেশে করা হবে। এছাড়া মাদকের টাকা কোথায় যায়, কীভাবে দমন করা হবে, তা নিয়ে কাজ করবে কমিটি।

ঢাকানিউজ২৪.কম