হামিদুলের হত্যাকারী ছিনতাইকারী চক্র গ্রেফতার

নিউজ ডেস্ক: ছিনতাইকারীদের সঙ্গে ধস্তাধস্তির এক পর্যায়ে আহত হয়ে মারা যান জাসদ নেতা হামিদুল ইসলাম। তার মোবাইল ফোন ও মানিব্যাগ ছিনিয়ে নেয়ার সময় এই ঘটনা ঘটে। পুলিশের হাতে ধরা পড়া ছিনতাইকারীরা এখন এসব কথা বলছে। ছিনতাইকারী দলের নেতা অ্যারাবিয়ান সোহেলের নির্দেশে বাকীরা তাকে কুপিয়ে জখম করে। এতে অতিরিক্ত রক্তক্ষরণে হামিদুলের মৃত্যু হয়।

মঙ্গলবার মিন্টোরোডে ডিএমপির মিডিয়া সেন্টারে আয়োজিত সংবাদ সম্মেলনে এসব তথ্য জানানো হয়েছে। জিজ্ঞাবাসাদের জন্য মঙ্গলবার পাঁচ আসামিকে তিন দিনের রিমান্ডে নিয়েছে ডিবি।

চক্রের সদস্য জাহিদ একটি কোপ মারে হামিদুলের হাতে। ছাড়া পেয়ে সোহেল পরপর তিনটি কোপ মারে হামিদুলের পায়ে। তিনি রাস্তায় লুটিয়ে ঘটনাস্থলেই প্রাণ হারান হামিদুল।

ছিনতাই ও হত্যাকাণ্ডটি ঘটেছে শনিবার রাতে শাহবাগ থানাধীন রাজধানীর হাইকোর্ট মাজার সংলগ্ন ঈদগাহের সামনের সড়কে।

হামিদুল সেগুনবাগিচা এলাকার ডিস ব্যবসায়ী ছিলেন। এছাড়া তিনি বাংলাদেশ জাসদের শাহবাগ থানার সাধারণ সম্পাদক ও ঢাকা মহানগর দক্ষিণের সমবায় বিষয়ক সম্পাদক ছিলেন।

ছিনতাই ও হত্যাকাণ্ডে জড়িত চক্রের পাঁচ সদস্যকেই গ্রেপ্তার করেছে ঢাকা মহানগর গোয়েন্দা (ডিবি) পুলিশের রমনা বিভাগ। সোমবার রাজধানীর উত্তর মুগদা ও কামরাঙ্গীরচর থেকে তাদের গ্রেপ্তার করা হয়। গ্রেপ্তার ব্যক্তিরা হলো- দলনেতা অ্যারাবিয়ান সোহেল, জাহিদ হোসেন, শুক্কুর আলী, শাকিল ওরফে ডুম্বাস ও সোহেল মিয়া। তাদের কাছ থেকে হত্যাকাণ্ডে ব্যবহৃত একটি চাকু, একটি ব্যাটারি চালিত রিকশা, লুন্ঠিত মোবাইল ও মানিব্যাগ উদ্ধার করা হয়েছে।

ঢাকানিউজ২৪ডটকম