৩৭টি ব্যাংককে বিল কালেকশন এওয়ার্ড প্রদান

পল্লী উন্নয়ন ও সমবায় মন্ত্রী মোঃ তাজুল ইসলাম
পল্লী উন্নয়ন ও সমবায় মন্ত্রী মোঃ তাজুল ইসলাম

নিউজ ডেস্ক: স্থানীয় সরকার, পল্লী উন্নয়ন ও সমবায় মন্ত্রী মোঃ তাজুল ইসলাম ঢাকা ওয়াসা ভবনের বুড়িগঙ্গা হলে আয়োজিত সরকারি-বেসরকারি ব্যাংককে ঢাকা ওয়াসা কর্তৃক ‘বিল কালেকশন এওয়ার্ড-২০১৯-২০ইং’ প্রদান করেন। অনুষ্ঠানে সরকারি-বেসরকারি ৩৭টি ব্যাংকের ব্যবস্থাপনা পরিচালকের হাতে এ ‘এওয়ার্ড’ প্রদান করা হয়।

এওয়ার্ড প্রদানশেষে সাংবাদিকদের প্রশ্নোত্তরে মন্ত্রী বলেন, নগরীর পানিনিষ্কাশনের ব্যবস্থা ঢাকা ওয়াসা থেকে দুই সিটি কর্পোরেশনের নিকট হস্তান্তরের পর থেকেই কাজ শুরু হলেও আগামী সপ্তাহে দুই সিটি কর্পোরেশনকে নিয়ে মন্ত্রণালয়ে কর্মপরিকল্পনা ঠিক করা হবে। দুইমেয়রের পরিকল্পনা জেনে মন্ত্রণালয়ের পক্ষ থেকেও কর্মপরিকল্পনা ঠিক করে দেয়া হবে। ঢাকা শহরের নাগরিক সমস্যাসমাধানে একটি আধুনিক বাসযোগ্য শহর করতে যা যা দরকার, তা করা হবে।

আমিনবাজারে বর্জ্যের স্তূপপ্রসঙ্গে বলেন, মন্ত্রীর দায়িত্ব গ্রহণের পর থেকেই তিনি রাজধানীর বর্জ্যব্যবস্থাপনা নিয়ে কাজ শুরু করেন। বর্জ্য থেকে বিদ্যুৎ উৎপাদনের জন্য আমিনবাজারে ইন্সিনেরেশন প্লান্ট স্থাপনের পরিকল্পনা নেয়া হয়েছে এবং কার্যক্রম শুরু হয়েছে। ইন্সিনেরেশন প্লান্টে প্রতিদিন যে পরিমাণ বর্জ্য লাগবে, সে পরিমান বর্জ্য সরবরাহ করলে যেখানে সেখানে আর ময়লা-আবর্জনা পড়ে থাকবে না। সকল সিটি কর্পোরেশন এবং জেলায় ইন্সিনেরেশন প্লান্ট স্থাপন করা হবে বলেও জানান তিনি।

মন্ত্রী বলেন, সকলের অংশগ্রহণ থাকলে যে কোনো সমস্যা সমাধানের বড় উদাহরণ হচ্ছে, রাজধানীতে ডেঙ্গুর প্রাদুর্ভাবনিয়ন্ত্রণ। নগরবাসীর অংশগ্রহণ ও সচেতনতা এবং সকলের সমন্বিত উদ্যোগে এখন পর্যন্ত মশা নিয়ন্ত্রণে রয়েছে, যদিও আইডিসিআর পূর্বাভাস দিয়েছিল ২০১৯ এর তুলনায় ২০২১ সালে তিনগুণ মানুষ আক্রান্ত ও মৃত্যু হবে।

ঢাকা ওয়াসার ব্যবস্থাপনা পরিচালক ইঞ্জিনিয়ার তাকসিম এ খানের সভাপতিত্বে ঢাকা ওয়াসা বোর্ডের চেয়ারম্যান ড. ইঞ্জিনিয়ার গোলাম মোস্তফা এবং স্থানীয় সরকার বিভাগের অতিরিক্ত সচিব মোহাম্মদ ইবরাহীম অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন।