ময়মনসিংহ নগরীর প্রধান প্রধান সড়ক ১ ফেব্রুয়ারি থেকে আবর্জনামুক্ত ঘোষণা

মো. নজরুল ইসলাম, ময়মনসিংহ : ময়মনসিংহ সিটি কর্পোরেশনের (মসিক) মেয়র মোঃ ইকরামুল হক টিটু বলেন, নগরীর প্রধান প্রধান সড়ক সমূহকে আবর্জনামুক্ত রাখতে পাইলট প্রকল্প গ্রহণ করা হয়েছে। আগামী পহেলা ফেব্রæয়ারি থেকে তা কার্যকর করা হবে। সিটি কর্পোরেশনের গৃহিত রাত্রীকালীন বর্জ্য ব্যবস্থাপনাসহ সার্বিক বর্জ্য ব্যবস্থাপনায় নাগরিকগণের সহযোগিতা কামনা করেন মসিক মেয়র।

বুধবার (১৩ জানুয়ারি ) বেলা ৩টায় ময়মনসিংহ সিটি কর্পোরেশনের শম্ভুগঞ্জ ডাম্পিং স্টেশনের সুষ্ঠু আবর্জনা ব্যবস্থাপনায় আবর্জনাবাহী যানবাহনের জন্য স্টেশনের অভ্যন্তরে সড়ক ও ভেহিকল সেড নির্মাণ এবং ডাম্পিং স্টেশনের পরিবেশ উন্নয়নে গৃহিত কার্যক্রমের পরিদর্শনকালে মেয়র মোঃ ইকরামুল হক টিটু এসব কথা বলেন।

মেয়র টিটু আরো বলেন, এই ল্যান্ডফিল স্টেশনটি দীর্ঘদিন ধরেই আমরা চ্যালেঞ্জ হিসেবে মোকাবেলা করে আসছিলাম। আমাদের যানবাহনের সংকট ছিলো, আমাদের জায়গা সংকট ছিলো এবং অনেক সময় এ কাজে যাঁরা দায়িত্বে ছিলেন তাদের শতভাগ আন্তরিকতার অভাবে সমস্যার সমাধান করা যায়নি। তবে আমরা ইতোমধ্যে ল্যান্ডফিলের পাশ্ববর্তী জায়গা অধিগ্রহণ করেছি এবং ময়মনসিংহ সিটি কর্পোরেশনের বর্জ্য ব্যবস্থাপনার জন্য পৃথক বিভাগ খোলা হয়েছে। যার ফলশ্রæতিতে পরিস্থিতির উন্নয়ন ঘটছে।

মসিক মেয়র বলেন, অন্যান্য জায়গায় যেভাবে আধুনিক পদ্ধতিতে বর্জ্য ব্যবস্থাপনা করা হয় ময়মনসিংহ সিটি কর্পোরেশনেও সেভাবে করা হবে। তার প্রস্তুতি নেওয়া হয়েছে। ময়মনসিংহকে বর্জ্য শূন্য করার জন্য বর্জ্য থেকে বিদ্যুৎ উৎপাদনের উদ্যোগ গ্রহণ করা হয়েছে। এক্ষেত্রেও আমরা সফল হব ইনশাল্লাহ।

এসময় প্রধান বর্জ্য ব্যবস্থাপনা কর্মকর্তা মোঃ আরিফুর রহমান, তত্ত¡াবধায়ক প্রকৌশলী রফিকুল ইসলাম মিঞা, আঞ্চলিক নির্বাহী কর্মকর্তা ড. উম্মে আফসারী জোহরা, আঞ্চলিক নির্বাহী কর্মকর্তা সুলতানা রাজিয়া, জনসংযোগ কর্মকর্তা শেখ মহাবুল হোসেন রাজীব, প্রধান স্বাস্থ্য কর্মকর্তা ডা. এইচ কে দেবনাথ, নির্বাহী প্রকৌশলী (সিভিল) মোঃ জহিরুল হক, নির্বাহী প্রকৌশলী (বিদ্যুৎ) মো. জিল্লুর রহমান, সহকারী প্রকৌশলী মো. আজাহারুল হক প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।