করোনাভাইরাস ধ্বংসে ‘নাজাল স্প্রে’ আবিস্কারের দাবি বিআরআইসিএম’র

নিউজ ডেস্ক: বাংলাদেশ রেফারেন্স ইনস্টিটিউট ফর কেমিক্যাল মেজারমেন্টস (বিআরআইসিএম) করোনাভাইরাস ধ্বংস করতে সক্ষম ‘নাজাল স্প্রে’ আবিষ্কারের দাবি করেছে। তাদের দাবি, এটি বিশ্বের প্রথম এই ধরনের স্প্রে, যার নামকরণ করা হয়েছে ‘বঙ্গসেফ ওরো-নাজাল স্প্রে’।

মঙ্গলবার (১২ জানুয়ারি) জাতীয় সংসদ ভবনে অনুষ্ঠিত বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি মন্ত্রণালয় সম্পর্কিত স্থায়ী কমিটির বৈঠকে বিআরআইসিএম এই নতুন স্প্রে সম্পর্কে ঘোষণা করা হয়। তারা দাবি করেন, হ্যান্ড স্যানিটাইজার বা সাবান পানি দিয়ে হাত ধোয়া করোনভাইরাসকে সরিয়ে দেয়। তবে এখন পর্যন্ত ভাইরাসটি ধ্বংস করতে নাক বা মুখে এ জাতীয় কোনও ওষুধ ব্যবহার বা আবিস্কার করা হয়নি।

সংসদ সচিবালয়ের এক বিবৃতিতে বলা হয়েছে, “২০০ জন করোনা রোগীর মধ্যে ঢাকা মেডিকেল কলেজ (ডিএমসি) স্প্রেটির ‘ক্লিনিকাল ট্রায়াল’ করেছে।” এটি কার্যকর প্রমাণিত হয়েছে। এখন ট্রায়ালটি আরও বড় আকারে চালানো হবে।

বিআরআইসিএম-এর মহাপরিচালক (অতিরিক্ত দায়িত্ব) মালা খান জানিয়েছেন, তারা সীমিত আকারে ২০০ জনের উপরে ক্লিনিকাল ট্রায়াল করেছিলেন। তাতে ৮০ শতাংশের বেশি কার্যকর বলে প্রমাণিত হয়েছে।

তারা এখন আরও বেশি লোকের পরীক্ষা নেওয়ার জন্য বাংলাদেশ মেডিকেল গবেষণা কাউন্সিলের কাছে আবেদন করবেন। ইতোমধ্যে শিল্প মন্ত্রণালয়কে এই স্প্রেটির পেটেন্টের জন্য আবেদন করা হয়েছে।

এই স্প্রে উদ্ভাবনের জন্য বৈঠকে বিআরআইসিএম-কে ধন্যবাদ জানানো হয়। একই সঙ্গে কমিটি স্প্রে সম্পর্কে প্রচার বাড়াতে এবং এর ব্যবহারের জন্য উপযুক্ত কর্তৃপক্ষের অনুমোদন পাওয়ার জন্য প্রয়োজনীয় পদক্ষেপ নেওয়ার পরামর্শ দেয়া হয়।

এএফএম রুহুল হকের সভাপতিত্বে ও কমিটির অন্যান্য সদস্যরা ছিলেন ইকবালুর রহিম, হাবিবে মিল্লাত, শফিকুল আজম খান, নিজাম উদ্দিন হাজারী, মোজাফফর হোসেন, শিরিন আহমেদ ও সেলিমা আহমেদ।