কাজী পেশায় নারীকে নিষিদ্ধ করার রায়ে ক্ষুব্ধ নারীপক্ষ

নিউজ ডেস্ক: নারী নিকাহ রেজিস্ট্রার (কাজী) হতে পারবে না মর্মে আইন মন্ত্রণালয়ের সিদ্ধান্ত বহাল রেখে হাইকোর্টের দেওয়া রায়ে নারীপক্ষ বিস্মিত, হতাশ ও ক্ষুব্ধ। আমরা এর তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানাই।

১৫০ বছর আগে নারীর ভোটাধিকার নিয়ে যুক্তরাজ্যে এমন অর্বাচীন বিতর্কের সৃষ্টি হয়েছিলো। আধুনিকতা, উন্নয়ন ও নারী অধিকার প্রতিষ্ঠার লড়াইয়ের অনেকটা পথ পেরিয়ে এসে আজ একবিংশ শতাব্দীতে দাঁড়িয়ে হাইকোর্টের দেয়া এই ধরনের পশ্চাদপদ রায়ে এটাই প্রতীয়মান হয় যে, আমাদের দেশ প্রগতির দিকে নয় বরং রক্ষণশীলতার পথেই হাঁটছে।

নারীর ঋতু¯্রাব বিয়ের রেজিস্ট্রার হওয়ার ক্ষেত্রে প্রধান অন্তরায়- আদালতের দেয়া এই পর্যবেক্ষণ হাস্যকর, অযৌক্তিক এবং অগ্রহণযোগ্য। এই রায় পেশা নির্বাচনের ক্ষেত্রে নারীর সাংবিধানিক অধিকারের লঙ্ঘন। ধর্মীয় বিশ^াস ও সংস্কারের দোহাই দিয়ে অন্যায় ও পশ্চাদপদ সিদ্ধান্ত না নিয়ে সংবিধান এবং নারী উন্নয়নের প্রতি সরকারের অঙ্গীকারকে ভিত্তি করে সিদ্ধান্ত নেয়াটাই প্রত্যাশিত। এ বিষয়ে নারীপক্ষ সরকার এবং বিচার বিভাগের দৃষ্টি আর্ষণ করছে। নারীপক্ষ’র দাবি, ধর্মভিত্তিক বিবাহ নিবন্ধন আইন বিলুপ্ত করে অভিন্ন বিবাহ নিবন্ধন আইন প্রবর্তন করা হোক।

সূত্র: প্রেস বিজ্ঞপ্তি

ঢাকানিউজ২৪ডটকম