খুনি নেতানিয়াহুর পবিত্র ভূমি সফর, হামাস ব্যাখ্যা চেয়েছে

ফিলিস্তিনের ইসলামী প্রতিরোধ আন্দোলন হামাস ইসরায়েলের প্রধানমন্ত্রী বেনিয়ামিন নেতানিয়াহুকে মুসলমানদের সবচেয়ে পবিত্রতম স্থান সৌদি আরব সফর করার অনুমতির কারণ ব্যাখ্যা চেয়েছেন।

হামাসের প্রভাবশালী নেতা সামি আবু জুহরি সোমবার বলেছেন যে দখলদার ইসরায়েলের প্রধানমন্ত্রী বেনিয়ামিন নেতানিয়াহুর সৌদি আরবে গোপন সফর সমগ্র মুসলিম উম্মাহর অপমান। এর মাধ্যমে পুরো মুসলিম বিশ্বকে অপমান করা হয়েছে। একই সাথে, ফিলিস্তিনি জনগণের সমস্ত অধিকারকে উপেক্ষা করা হয়েছে। সৌদি আরবকে অবশ্যই এর ব্যাখ্যা দিতে হবে। নেতানিয়াহুর এই সফর তিনি অত্যন্ত বিপজ্জনক বলেছেন।

সৌদি আরবের মুসলমানদের পবিত্রতম স্থান হ’ল মক্কা এবং মদীনা। হযরত মুহাম্মদ (সা:) সৌদি আরবে জন্মগ্রহণ করেছিলেন। সে কারণেই ইসরায়েলের প্রধানমন্ত্রী বেনিয়ামিন নেতানিয়াহু এসব পবিত্র স্থান সফর করা মুসলমানদের জন্য অত্যন্ত বেদনাদায়ক। মুসলমানদের তৃতীয় পবিত্রতম স্থান মসজিদুল-আকসা দখলকারী হিসেবে চিহ্নিত খুনি বেনিয়ামিন নবীর জন্মভূমিতে প্রবেশের অনুমতি দেওয়া ইসলামিক বিশেষজ্ঞরা এটিকে সমস্ত মুসলমানদের জন্য অপমানজনক বলেই মনে করছেন।

নেতানিয়াহুর সরকার ফিলিস্তিনে প্রায় প্রতিদিনই মুসলমানদের হত্যা করছে। মুসলমানরা নেতানিয়াহুসহ ইসরায়েলের নেতাদের ভয়াবহ ঘাতক হিসাবে মনে করে। ইসরায়েলের সংবাদ মাধ্যমে জানা যায়, প্রধানমন্ত্রী বেনিয়ামিন নেতানিয়াহু গতকাল সৌদি আরবে একটি গোপনে সফর করেন। সেখানে তিনি সৌদি ক্রাউন প্রিন্স মুহাম্মদ বিন সালমানের সাথেও সাক্ষাৎ করেন। দখলদার ইসরাইলীয় গুপ্তচর সংস্থা মোসাদের প্রধান ইউসি কোহেনও বৈঠকে উপস্থিত ছিলেন বলে জানা যায়।