মহাকাশ স্টেশনে গেল নাসার ড্রাগন

নিউজ ডেস্ক:    যুক্তরাষ্ট্রের ফ্লোরিডার কেনেডি স্পেস সেন্টার থেকে সফলভাবে যাত্রা করেছে মহাকাশযান ড্রাগন। স্থানীয় সময় রোববার রাতে চার মহাকাশচারীকে নিয়ে যাত্রা করেছে যানটি। এর মধ্য দিয়ে মহাকাশ অভিযানে নতুন যুগের সূচনা হলো বলে জানিয়েছে নাসা।

ড্রাগনে থাকা চার মহাকাশচারীর মধ্যে তিনজন যুক্তরাষ্ট্রের এবং অন্যজন জাপানি। তাদের নিয়েই সফলভাবে মহাকাশ স্টেশনের দিকে উড়ে যায় স্পেসএক্সের ড্রাগন মহাকাশযান। সেখানে অন্য মহাকাশচারীদের সঙ্গে ছয় মাস কাজ করবেন এই চারজন। খবর নাসা ও গার্ডিয়ানের।

এ বছরের মাঝামাঝি সময়ে ফ্লোরিডায় নাসার গবেষণা কেন্দ্র থেকে পরীক্ষামূলকভাবে মহাকাশে যায় ড্রাগন। সে সময়ও মহাকাশচারী ছিলেন। তবে রোববার ফ্লোরিডা থেকে যে চারজন মহাকাশচারীকে পাঠানো হয়েছে, তারা মহাকাশ স্টেশনে বেশ কিছু গুরুত্বপূর্ণ গবেষণায় অংশ নেবেন।

এত দিন মহাকাশ স্টেশনে গবেষকদের আনা-নেওয়ার কাজ মূলত করত রাশিয়ার সয়ুজ মহাকাশযান। উদ্যোক্তা ইলন মাস্কের অর্থায়নে গড়ে ওঠা কোম্পানি স্পেসএপের ড্রাগন বহু দিনের সে নিয়মে পরিবর্তন আনল। রাশিয়ার মহাকাশযানের চেয়েও এই মহাকাশযান দ্রুত স্পেস স্টেশনে পৌঁছাবে বলে জানিয়েছে নাসা।

সোমবার সকালে নাসা জানিয়েছে, পৃথিবীর বায়ুমণ্ডল ভেদ করে ড্রাগন মহাকাশে ঠিকভাবে পৌঁছে গেছে। সফল এই উৎক্ষেপণের জন্য নাসা ও অভিযাত্রীদের অভিনন্দন জানিয়েছেন যুক্তরাষ্ট্রের নবনির্বাচিত প্রেসিডেন্ট জো বাইডেন।