ময়মনসিংহে কঙ্কাল উদ্ধারের ঘটনায় মামলা

নিউজ ডেস্ক:    ময়মনসিংহে একটি বাসায় অভিযান চালিয়ে কঙ্কাল উদ্ধার ঘটনায় মামলা হয়েছে। আটক মো. বাপ্পীসহ দু’জনের নাম উল্লেখ করে অজ্ঞাতপরিচয় আরও কয়েকজনকে আসামি করে নগরীর কোতোয়ালি থানায় এ মামলা হয়।

নগরীর রামকৃষ্ণ মিশন রোডের একটি বাসায় গত শনিবার রাতে পুলিশ অভিযান চালিয়ে কার্টনভর্তি ১২টি মাথার খুলি ও দুই বস্তা মানবদেহের বিভিন্ন হাড়, মৃতদেহ প্রক্রিয়াজাত করে কঙ্কাল করার কাজে ব্যবহৃত বিপুল পরিমাণ রাসায়নিক দ্রব্য উদ্ধার করা হয়। এ সময় কঙ্কালচক্রের হোতা মো. বাপ্পীকে আটক করা হয়। তিনি নগরীর কালীবাড়ি কবরখানা এলাকার আবুল হোসেনের ছেলে।

দীর্ঘদিন ধরে একটি চক্রের সঙ্গে জড়িত থেকে বাপ্পী মানব কঙ্কাল দেশের বিভিন্ন মেডিকেল কলেজের শিক্ষার্থীদের কাছে বিক্রি ও দেশের বাইরে পাচার করতেন। বিভিন্ন কবরস্থানে গোরখোদকদের সঙ্গে যোগসাজশে মরদেহ সংগ্রহ করতেন। এর পর পাহাড় ও বনাঞ্চল এলাকায় নির্জন স্থানে নিয়ে প্রক্রিয়াজাত করে কঙ্কাল করা হতো মরদেহগুলো। কঙ্কাল চুরির সঙ্গে জড়িত থাকায় আগেও একবার গ্রেপ্তার হয়ে জেল খেটেছেন বাপ্পী।

ময়মনসিংহ কোতোয়ালি মডেল থানার ওসি ফিরোজ তালুকদার বলেন, কঙ্কাল চুরির ঘটনায় এসআই রাশেদুল ইসলাম বাদী হয়ে মামলা করেছেন। ওই মামলায় গ্রেপ্তার দেখিয়ে বাপ্পীকে সোমবার ১০ দিনের রিমান্ড চেয়ে আদালতে সোপর্দ করা হয়েছে। অন্য আসামিদের গ্রেপ্তারের চেষ্টা চলছে।