কাউন্সিলর ইরফান সেলিম ও তার দেহরক্ষীর এক বছরের কারাদণ্ড

নিউজ ডেস্ক:     বিদেশি মদ ও অবৈধ ওয়াকিটকি রাখার দায়ে ঢাকা-৭ আসনের এমপি হাজী সেলিমের ছেলে ও ঢাকা দক্ষিণের ৩০ নম্বর ওয়ার্ডের কাউন্সিলর ইরফান সেলিম ও তার দেহরক্ষী মোহাম্মদ জাহিদকে এক বছরের কারাদণ্ড দিয়েছেন র‍্যাপিড অ্যাকশন ব্যাটালিয়ন (র‍্যাব) এর ভ্রাম্যমাণ আদালত।

সোমবার দুপুর থেকে সন্ধ্যা পর্যন্ত হাজী সেলিমের বাড়িতে অভিযান চালিয়ে ওই দু’জনকে গ্রেপ্তারের পর এই দণ্ড দেওয়া হয়।

সোমবার সন্ধ্যায় র‌্যাবের লিগ্যাল অ্যান্ড মিডিয়া উইংয়ের পরিচালক লেফটেন্যান্ট কর্নেল আশিক বিল্লাহ বলেন, ভ্রাম্যমাণ আদালতের এই দণ্ডের পাশাপাশি দু’জনের বিরুদ্ধে অস্ত্র ও মাদক আইনে দু’টি মামলা করা হবে।

এর আগে লেফটেন্যান্ট কর্নেল আশিক বিল্লাহ জানান, রাজধানীর সোয়ারিঘাটের দেবদাস লেনে হাজী সেলিমের সাদা রঙের নয়তলা ওই ভবন থেকে একটি বিদেশি পিস্তল, গুলি, একটি এয়ারগান, ৩৭টি ওয়াকিটকি, একটি হাতকড়া এবং বিদেশি মদ ও বিয়ার পাওয়া যায়।

রোববার রাতে ঢাকা-৭ আসনের এমপি হাজী মোহাম্মদ সেলিমের ‘সংসদ সদস্য’ লেখা সরকারি গাড়ি থেকে নেমে নৌবাহিনীর কর্মকর্তা ওয়াসিফ আহমেদ খানকে মারধর করা হয়। রাতে এ ঘটনায় জিডি হলেও সোমবার ভোরে হাজী সেলিমের ছেলেসহ ৭ জনের বিরুদ্ধে মারধর ও হত্যাচেষ্টার অভিযোগে মামলা করেন ওয়াসিফ।