না ফেরার দেশে চলে গেলেন ব্যারিস্টার রফিক-উল হক

নিউজ ডেস্ক:  সুপ্রিম কোর্টের জ্যেষ্ঠ আইনজীবী ও সাবেক অ্যাটর্নি জেনারেল ব্যারিস্টার রফিক-উল হক আর নেই (ইন্না লিল্লাহি ওয়া ইন্না ইলাইহি রাজিউন)। তার বয়স হয়েছিল ৮৫ বছর।

শনিবার সকাল সাড়ে আটটার দিকে রাজধানীর আদ-দ্বীন হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় মারা যান তিনি।

বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন আদ-দ্বীন হাসপাতালের মহাপরিচালক অধ্যাপক নাহিদ ইয়াসমিন।

ব্যারিস্টার রফিক-উল হকের মৃত্যুতে প্রধান বিচারপতি সৈয়দ মাহমুদ হোসেন, আইনমন্ত্রী আনিসুল হক, বাণিজ্যমন্ত্রী টিপু মুনশি ও শিল্পমন্ত্রী নূরুল মজিদ মাহমুদ হুমায়ূন, মোস্তফা মহসীন মন্টু সহ অনেকে গভীর শোক প্রকাশ করেছেন।

 

এর আগে গত ১৫ অক্টোবর শারীরিক অসুস্থতা নিয়ে হাসপাতালে ভর্তি হন রফিক-উল হক। পরদিন তিনি কিছুটা সুস্থবোধ করলে সকালের দিকে রিলিজ নিয়ে বাসায় ফেরেন। কিন্তু দুপুরের পর ফের তাকে ভর্তি করা হয় হাসপাতালে। পরে অবস্থার অবনতি হলে গত মঙ্গলবার তাকে লাইফ সাপোর্টে নেওয়া হয়।

দীর্ঘদিন ধরে রক্তশূন্যতা, ইউরিন ও হার্টের সমস্যাসহ বার্ধক্যজনিত জটিলতায় ভুগছিলেন প্রবীণ এই আইনজীবী। তিনি ডাক্তার রিচমন্ড রোল্যান্ড গোমেজের তত্ত্বাবধানে চিকিৎসাধীন ছিলেন।

ব্যারিস্টার রফিক-উল হক ১৯৩৫ সালের ২ নভেম্বর কলকাতার সুবর্ণপুর গ্রামে জন্মগ্রহণ করেন। তিনি ১৯৯০ সালের ৭ এপ্রিল থেকে একই বছরের ১৭ ডিসেম্বর পর্যন্ত অ্যাটর্নি জেনারেল পদে কর্মরত ছিলেন। ২০১৭ সালে বাম পায়ের হাঁটুতে অস্ত্রোপচারের পর থেকে তার চলাফেরা সীমিত হয়ে পড়ে। এ কারণে তিনি স্বাভাবিকভাবে চলাফেরা করতে না পারায় কোর্টে আসতে পারেননি।