সেনাদের যুদ্ধের জন্য প্রস্তুত থাকতে বললেন শি জিনপিং

নিউজ ডেস্ক:    চীনের প্রেসিডেন্ট শি জিনপিং সেনাবাহিনীকে যুদ্ধের জন্য প্রস্তুত হতে বলেছেন। চীনের চাওঝৌ সিটিতে মেরিন কোর পরিদর্শনে সেনাদের এমনই নির্দেশ দিলেন তিনি। শি বলেন, সেনাদের অবশ্যই সবচেয়ে বেশি অনুগত, সম্পূর্ণ বিশুদ্ধ এবং সবচেয়ে নির্ভরযোগ্য হতে হবে। তাদের কায়মনোবাক্যে সব সময় যুদ্ধের জন্য তৈরি থাকতে হবে। খবর জিনহুয়ার।

ভারত আর চীন এখন লাদাখে প্রায় মুখোমুখি অবস্থানে রয়েছে। তবে প্রেসিডেন্ট শি’র এই বক্তব্য যে ভারতকেই লক্ষ্য করে করা হয়েছে, তা নয় বলে জানিয়েছে বিভিন্ন সূত্র। ওদিকে তাইওয়ান প্রণালিতে যুক্তরাষ্ট্রের নৌবাহিনীর যুদ্ধজাহাজের অবস্থানের কারণেও যে এটা হতে পারে তা উড়িয়ে দেয়া যায় না।

দক্ষিণ চীন সাগরে চীন তাদের সার্বভৌমত্ব দাবি করে থাকে। একই অঞ্চলে একই রকম দাবি করে থাকে মালয়েশিয়া, ভিয়েতনাম, ফিলিপাইন ও তাইওয়ানও।

যুক্তরাষ্ট্রের সঙ্গে চীনের সম্পর্ক এখন যে কোনো সময়ের চেয়ে তিক্ত। এর মূলে রয়েছে তাইওয়ানের সঙ্গে যুক্তরাষ্ট্রের অতিরিক্ত মাখামাখি এবং করোনাভাইরাসের উৎপত্তি বিতর্ক। ভারত-প্রশান্ত মহাসাগরীয় এলাকায় নিজেদের প্রভাব বাড়ানোর চেষ্টা রয়েছে যুক্তরাষ্ট্র। এটা চীনের জন্য বড় ধরনের মাথাব্যথার কারণ হয়ে দাঁড়িয়েছে।

ওদিকে যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প করোনাভাইরাসের প্রাদুর্ভাব চীনের উহান থেকে ঘটেছে বলে বার বার অভিযোগ করে আসছেন। তার মতে, উহানের ল্যাবরেটরিতেই এই ভাইরাসের উৎপত্তি এবং বিস্তৃতি।

কোয়াদের সাম্প্রতিক এক বৈঠকে যুক্তরাষ্ট্রের পররাষ্ট্রমন্ত্রী মাইক পম্পেও বলেছিলেন, উহান থেকে ছড়িয়ে পড়া করোনাভাইরাস পরিস্থিতি সামলাতে গিয়ে চীনা কমুনিস্ট সরকারের অদক্ষতা ও অযোগ্যতা স্পষ্ট হয়ে উঠেছে। ভারত, জাপান, অস্ট্রেলিয়া ও যুক্তরাষ্ট্রের অংশগ্রহণে অনুষ্ঠিত ওই বৈঠকে তিনি আরো বলেন, চীনের কমুনিস্ট পার্টির জোর জুলুম ও জবরদস্তি থেকে বিভিন্ন দেশের সার্বভৌমত্ব ও স্বাধীনতা রক্ষার জন্য আমরা কাজ করে যাচ্ছি।

পম্পেও বলেন, আমরা দক্ষিণ-পূর্ব চীন সাগর, হিমালয়ের পাদদেশ, হংকং ও তাইওয়ান প্রণালিতে দেখে আসছি। তবে চীনের আগ্রাসন শুধু এগুলোতেই সীমাবদ্ধ নয়।