ফাঁসি নয়, ন্যায় বিচার প্রতিষ্ঠা করুন: ডা. জাফরুল্লাহ

নিউজ ডেস্ক:    সরকারের উদ্দেশে গণস্বাস্থ্য কেন্দ্রের প্রতিষ্ঠাতা ও ট্রাস্টি ডা. জাফরুল্লাহ চৌধুরী বলেছেন, ধর্ষণের সর্বোচ্চ শাস্তি ফাঁসি দেওয়ার আগে ন্যায় বিচার প্রতিষ্ঠা করুন। তাহলে দেশে শান্তি প্রতিষ্ঠিত হবে।

মঙ্গলবার জাতীয় প্রেস ক্লাবে জাতীয় স্মরণ মঞ্চের উদ্যোগে বীর মুক্তিযোদ্ধা ইসমাইল হোসেন বেঙ্গল স্মরণে নাগরিক শোক সভায় তিনি এ কথা বলেন।

সংগঠনের সহসভাপতি লায়ন আলামীনের সভাপতিত্বে সংগঠনের সাধারণ সম্পাদক ও জাকির হোসেনের সঞ্চালনায় সভায় আরও উপস্থিত ছিলেন নাগরিক ঐক্যের আহ্বায়ক মাহমুদুর রহমান মান্না, বিএনপি চেয়ারপারসনের উপদেস্টা কবি আবদুল হাই শিকদার, মুক্তিযোদ্ধা দলের সভাপতি উলফাত আজিজ, সাধারণ সম্পাদক সাদেক খান প্রমুখ।

জাফরুল্লাহ চৌধুরী বলেন, হঠাৎ করে মানুষ খারাপ হয়ে যায়নি। দেশে অনাচার থাকলে, দুর্নীতি থাকলে, সুশাসনের অভাব থাকলে এটা ঘটে। এইসব জিনিস নিজে থেকে ঘটছে, তা না। তিনি বলেন, সরকার কত দ্রুত একটা আইন করে ফেলল। ধর্ষণের সর্বোচ্চ শাস্তি ফাঁসি। এটা কোনো সমাধান হতে পারে না। এটা শুধু ডাইভারশন, একটি পথকে অন্য দিকে ঘুরিয়ে নিয়ে যাওয়া। আসলে এর প্রতিকার হল ন্যায় বিচার।

জাফরুল্লাহ চৌধুরী বলেন, ন্যায় বিচার করা কঠিন কোনো কাজ নয়। দ্রুত উদ্যোগ নিলে ১৫ বা সাত দিনের মধ্যেই ৮০ ভাগ ধর্ষক ধরা পড়ে যাবে। তাদের বিরুদ্ধে চার্জশিট গঠন করে বিচার করেন। আর যারা ধরা পড়বে না, তাদের জন্য আলাদা মামলা করেন। তাহলে দেখবেন দেশে শান্তি প্রতিষ্ঠিত হবে।

তিনি বলেন, ২০১৮ সালে দিনের নির্বাচন রাতে হয়েছিল। সেই নির্বাচনের পরে বিএনপির ৭০ জন প্রার্থী মামলা করেছিল। সেই মামলার জন্য একদিনও কোর্ট বসেনি। বিচারপতিরা তাদের বিবেকের কাছে এর জবাব কি দেবেন?