চার খাতের কারণে সূচকের পতন ঘটেনি

সিনিয়র রিপোর্টার: সপ্তাহের চতুর্থ কার্যদিবসে দেশের প্রধান শেয়ারবাজার ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জে (ডিএসই) সূচকের উত্থানে লেনদেন শেষ হয়েছে। এইদিন শুরু থেকেই ৪ খাতের ক্রয় প্রেসারে টানা বাড়তে থাকে সূচক। খাতগুলো হলো: প্রকৌশল, খাদ্য ও আনুষাঙ্গিক, জ্বালানী ও বিদ্যুৎ এবং বস্ত্র। তবে সোয়া দুই ঘন্টা পরে ব্যাংক খাতের সেল প্রেসারে উত্থানের মাত্রা কিছুটা হ্রাস পায়। বুধবার লেনদেন শেষে সূচকের পাশাপাশি বেড়েছে বেশীরভাগ কোম্পানির শেয়ার দর। তবে টাকার অংকে লেনদেন আগের দিনের তুলনায় কিছুটা কমেছে। আলোচিত সময় পর্যন্ত ডিএসইতে লেনদেন কমেছে ১৭৯ কোটি ১ লাখ ৪৫ হাজার টাকা।

আজ দিন শেষে ডিএসইর ব্রড ইনডেক্স আগের দিনের চেয়ে ৫ পয়েন্ট বেড়ে অবস্থান করছে ৪৯৩৪ পয়েন্টে। আর ডিএসই শরিয়াহ সূচক ১ পয়েন্ট বেড়ে অবস্থান করছে ১১১১ পয়েন্টে এবং ডিএসই ৩০ সূচক পয়েন্ট ০.৮২ কমে অবস্থান করছে ১৬৭৭ পয়েন্টে। দিনভর লেনদেন হওয়া ৩৫৫টি কোম্পানি ও মিউচ্যুয়াল ফান্ডের মধ্যে দর বেড়েছে ২০৪টির, কমেছে ১০৬টির এবং অপরিবর্তিত রয়েছে ৪৫টির। আর দিন শেষে লেনদেন হয়েছে ৮৮৮ কোটি ৭০ লাখ ৭১ হাজার টাকা।

এর আগের কার্যদিবস দিন শেষে ডিএসইর ব্রড ইনডেক্স ১৭ পয়েন্ট কমে অবস্থান করে ৪৯২৮ পয়েন্টে। আর ডিএসই শরিয়াহ সূচক ২ পয়েন্ট কমে অবস্থান করে ১১০৯ পয়েন্টে এবং ডিএসই ৩০ সূচক ৬ পয়েন্ট কমে অবস্থান করে ১৬৭৮ পয়ন্টে। আর ওইদিন লেনদেন হয়েছিল ১ হাজার ৬৭ কোটি ৭২ লাখ ১৬ হাজার টাকা। সে হিসেবে আজ ডিএসইতে লেনদেন কমেছে ১৭৯ কোটি ১ লাখ ৪৫ হাজার টাকা।

এদিকে দিন শেষে চট্টগ্রাম স্টক এক্সচেঞ্জে (সিএসই) সাধারণ মূল্য সূচক সিএসইএক্স ২২ পয়েন্ট বেড়ে অবস্থান করছে ৮ হাজার ৪৮৫ পয়েন্টে। দিনভর লেনদেন হওয়া ২৮৩টি কোম্পানির ও মিউচ্যুয়াল ফান্ডের মধ্যে দর বেড়েছে ১৭৩টির, কমেছে ৮০টির এবং অপরিবর্তিত রয়েছে ৩০টির। আর দিন শেষে লেনদেন হয়েছে ২৬ কোটি ৪২ লাখ ৬১ হাজার টাকা।
এসজেই/ঢাকা