মূল্যবান কষ্টিপাথর পুলিশের হাতে তুলে দিলেন স্বপ্না

নিউজ ডেস্ক:   পাবনার চাটমোহরের স্বপ্না খাতুন নামের এক নারী সততার দৃষ্টান্ত স্থাপন করেছেন। অন্যের বাড়িতে অযত্নে পড়ে থাকা প্রায় দুই কেজি ওজনের একটি কষ্টিপাথর উদ্ধার করে শনিবার সিনিয়র সহকারী পুলিশ সুপার (চাটমোহর সার্কেল) সজীব শাহরীনের হাতে তুলে দেন তিনি।

স্বপ্না চাটমোহরের বাহাদুরপুর গ্রামের গোলজার শেখের মেয়ে। তিনি জানান, কয়েক বছর ধরে একই গ্রামের সাজু হোসেনের স্ত্রী বেবী খাতুন একটি কালো পাথর শিল-নোড়া হিসেবে ব্যবহার করছিলেন। তিনি এক হাজার টাকা দেওয়ার কথা বলে বেবী খাতুনের থেকে ওই পাথর নিয়ে মির্জা মার্কেটের রোজি কুটির শিল্প নামে একটি সোনার দোকানে যান। পরীক্ষার পর ওই সোনার দোকানি পাথরটি কষ্টিপাথর বলে জানান।

স্বপ্না জানান, এরপর দোলবেদীতলা এলাকার রায় জুয়েলার্সের মালিক রনি রায়কে পাথরটি দেখান। সেখানেও পাথরটিকে কষ্টিপাথর হিসেবে নিশ্চিত করেন দোকানি। এরপর পাথরটি এএসপির হাতে তুলে দেন স্বপ্না।

সততার জন্য সরকারিভাবে পুরস্কৃত করা হলে নেবেন কিনা প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, ওই মহিলাকে (বেবী খাতুন) টাকা দিতে চেয়েছিলাম। আমি গরিব মানুষ। এখন টাকা দেব কোথা থেকে? তবে সরকারিভাবে সহযোগিতা করলে উপকৃত হতাম।

এএসপি সজীব শাহরীন বলেন, স্বপ্না খাতুন নামের এক নারী এসে একটি কালো পাথর দিয়েছেন। পাথরটি থানা হেফাজতে রাখা হয়েছে। তবে সেটি কষ্টিপাথর কিনা, তা যাচাই করে নিশ্চিত হওয়া যাবে।

চাটমোহর থানার ওসি আমিনুল ইসলাম বলেন, পাথরটি কষ্টিপাথর কিনা পরীক্ষার জন্য প্রত্নতত্ত্ব দপ্তরে পাঠানো হবে। নিশ্চিত না হয়ে কোনো কিছু বলা সম্ভব নয়।