পাকিস্তানে সরকার পতনের ডাক দিয়ে নতুন জোট গঠন

নিউজ ডেস্ক:    পাকিস্তানি ডেমোক্রেটিক মুভমেন্ট (পিডিএম) নামের একটি জোট গঠন করেছে প্রধান বিরোধীদলগুলো। রোববার জোট গঠনের আনুষ্ঠানিক ঘোষণা দিয়ে দেশটির প্রধানমন্ত্রী ইমরান খানের পদত্যাগের দাবিতে তিন ধাপের আন্দোলনের ‘কর্মপরিকল্পনা’ ঘোষণা করেছে দলগুলো।

আগামী মাস থেকে দেশব্যাপী জনসভা, ডিসেম্বরে বিক্ষোভ ও সমাবেশ এবং ২০২১ সালের জানুয়ারিতে রাজধানী ইসলামাবাদমুখী ‘লংমার্চ’ করার ঘোষণা দিয়েছে নতুন এ জোট। খবর ডনের।

রোববার পাকিস্তান পিপলস পার্টি (পিপিপি) আয়োজিত আট ঘণ্টাব্যাপী মাল্টি পার্টি করফারেন্স (এমপিসি) শেষে সংবাদ সম্মেলনে এ জোটের কর্মসূচি তুলে ধরা হয়। সম্মেলনে পাকিস্তানের ক্ষমতাচ্যুত প্রধানমন্ত্রী নওয়াজ শরীফ ও সাবেক রাষ্ট্রপতি আসিফ আলী জারদারি অনলাইনে সংযুক্ত হন।

পিএমএল-এন (পাকিস্তান মুসলিম লীগ-নওয়াজ) সভাপতি শাহবাজ শরীফ ও সহ-সভাপতি মরিয়ম নওয়াজ, পিপিপি চেয়ারম্যান বিলাওয়াল ভুট্টো জারদারি এবং অন্যান্য শীর্ষস্থানীয় বিরোধীদলগুলোর নেতাদের উপস্থিতিতে জেইউআই-এফ-এর প্রধান মাওলানা ফজলুর রেহমান তাদের জোটের ‘কর্মপরিকল্পনা’ সংবাদ সম্মেলনে তুলে ধরেন।

সরকারকে ক্ষমতাচ্যুত করার লক্ষ্যে ‘কর্মপরিকল্পনা’ ঘোষণার আগে জেআইআই-এফ প্রধান রাজনীতিতে কতৃত্ববাদী হস্তক্ষেপের অবসান, অবাধ ও সুষ্ঠু নির্বাচনসহ বিভিন্ন দাবি সংবলিত ২৬ দফা ঘোষণা পাঠ করেন।

তাদের ২৬ দফার মধ্যে রয়েছে- সশস্ত্র বাহিনী ও গোয়েন্দা সংস্থাগুলোর হস্তক্ষেপ ছাড়া নির্বাচনী ব্যবস্থার সংস্কার শেষে নির্বাচন, রাজনৈতিক বন্দিদের মুক্তি, সাংবাদিকদের বিরুদ্ধে মামলা প্রত্যাহার, সন্ত্রাসবাদের বিরুদ্ধে জাতীয় কর্মপরিকল্পনা বাস্তবায়ন এবং চীন-পাকিস্তান অর্থনৈতিক করিডোরের আওতাধীন প্রকল্পগুলোর গতি বাড়ানো।

মাওলানা ফজলুর রেহমান বলেন, কর্মপরিকল্পনার আওতায় তাদের কর্মসূচি চূড়ান্ত রূপ দেওয়া এবং জনসভা ও অন্যান্য কার্যক্রমের তারিখ ঘোষণার জন্য শিগগিরই একটি বিশেষ কমিটি গঠন করা হবে।

জেআইআই-এফ প্রধান ঘোষণা করেন, বিরোধীদলগুলো আর সংসদে সরকারকে সহযোগিতা করবে না। বরং নবগঠিত জোট তাদের আন্দোলনে সমাজের সব অংশের লোকজনের অংশগ্রহণের জন্য ডাক দেবে।