বাইডেন এলে চিন দখল করে নেবে এই দেশ: ট্রাম্প

নিউজ ডেস্ক :     চিনের প্রতি জো বাইডেনের পক্ষপাতিত্ব নিয়ে একাধিকবার মুখ খুলেছেন তিনি। আরও এক বার ডোনাল্ড ট্রাম্প তোপ দাগলেন তাঁর ডেমোক্র্যাট প্রতিদ্বন্দ্বীর বিরুদ্ধে। সরাসরিই বললেন, আগামী নির্বাচনে কোনও ডেমোক্র্যাট আমেরিকার প্রেসিডেন্ট হলে গোটা দেশটাই চিনের দখলে চলে যাবে। একই সঙ্গে গত কাল ডেমোক্র্যাট ভাইস প্রেসিডেন্ট পদপ্রার্থী কমলা হ্যারিসকেও তীব্র আক্রমণ করেছেন মার্কিন প্রেসিডেন্ট।

গত কাল ‘লেবার ডে’ উপলক্ষে হোয়াইট হাউসে সাংবাদিকদের মুখোমুখি হয়েছিলেন প্রেসিডেন্ট ট্রাম্প। সেখানেই একসঙ্গে বাইডেন ও হ্যারিসকে একহাত নিয়েছেন তিনি। ট্রাম্পের বক্তব্য, ‘ওয়ার্ল্ড ট্রেড অর্গানাইজেশন’ (ডব্লিউটিও)-এ চিনের প্রবেশকে সমর্থন করেছিলেন বাইডেন। তাঁর আরও অভিযোগ, প্রথম দিন থেকে আমেরিকা এই আন্তর্জাতিক সংস্থার সমস্ত নিয়ম-বিধি মেনে এসেছে। কিন্তু চিন ঠিক তার উল্টো। তা সত্ত্বেও বাইডেন যে ভাবে চিনকে সমর্থন করেন, তিনি জিতলে গোটা আমেরিকাকে দখল করা চিনের পক্ষে সহজ হয়ে যাবে। ট্রাম্পের কথায়, ‘‘আমরা আমাদের দেশকে মহাশক্তিধর (সুপার পাওয়ার) করার দিকে এগিয়ে নিয়ে যাব। যেখানে চিনের প্রতি আমাদের নির্ভরশীলতা কমবে। অথচ বাইডেন প্রেসিডেন্ট হলে গোটা দেশই ওরা দখল করে নেবে।’’

একই ভাবে বাইডেন-সঙ্গী কমলা হ্যারিসের নিন্দা করেছেন ট্রাম্প। জানিয়েছেন, আমেরিকায় কেউ হ্যারিসকে পছন্দ করেন না। তাই কখনও এ দেশের প্রেসিডেন্ট হতে পারবেন না এই ডেমোক্র্যাট নেত্রী। সম্প্রতি একটি টিভি চ্যানেলকে দেওয়া সাক্ষাৎকারে করোনাভাইরাসের প্রতিষেধক নিয়ে ট্রাম্পের নিত্যনতুন দাবির সমালোচনা করেছিলেন হ্যারিস। জানিয়েছিলেন, কোনও প্রতিষ্ঠিত জায়গা থেকে প্রতিষেধকের প্রতিশ্রুতি না পাওয়া পর্যন্ত দেশবাসীর বিষয়টি বিশ্বাস করা উচিত না। ওই সাক্ষাৎকার নিয়েই হ্যারিসকে বিঁধেছেন ট্রাম্প। বলেছেন, ‘‘আমরা এ বছরের শেষেই প্রতিষেধক পেয়ে যাব। হয়তো নভেম্বরের নির্বাচনের আগেই। কিন্তু এই প্রতিষেধককেই অবজ্ঞা করছেন অনেকে। আমি নিজের জন্য সাফল্য চাই না। আমি চাই, দেশের প্রতিটা মানুষের জন্য সাফল্য আসুক।’’ প্রতিষেধককে এ ভাবে অবজ্ঞা করার জন্য বাইডেন আর হ্যারিসের অবিলম্বে দেশবাসীর কাছে ক্ষমা চাওয়া উচিত বলেও মন্তব্য করেছেন ট্রাম্প।