রপ্তানিতে পোশাকের বিকল্প খাত উদ্ভাবন করতে হবে: ড. জাহিদ

 

নিউজ ডেস্ক: বৈদেশিক মুদ্রা অর্জনে পোশাক শিল্পের পাশাপাশি অন্যান্য বিকল্প খাতের ওপর গুরুত্ব দেওয়ার পরামর্শ দিয়েছেন বিশ্বব্যাংকের সাবেক অর্থনীতিবিদ ড. জাহিদ হোসেন। পাশাপাশি আর্থিক খাতে যেকোনো নীতিমালা গ্রহণের আগে এর তত্ত্বীয় বিষয়ে আলোচনা করা উচিত বলে অভিমত ব‌্যক্ত করেছেন তিনি।

সম্প্রতি ইয়ুথ পলিসি ফোরাম (ওয়াইপিএফ) আয়োজিত ‘টকিং পলিসিস’ সিরিজের চতুর্থ পর্ব ‘গ্রোথ, কম্পিটিটিভনেস অ্যান্ড ম্যাক্রোইকোনোমিক পলিসিস’ শীর্ষক অনুষ্ঠানে এ অভিমত ব‌্যক্ত করেন ড. জাহিদ হোসেন।

ওয়াইপিএফের উপদেষ্টা অর্থনীতিবিদ ড. আখতার মাহমুদের সঞ্চালনায় চতুর্থ পর্বে প্রধান অতিথি ছিলেন বিশ্বব্যাংকের এই সাবেক প্রধান অর্থনীতিবিদ।

তিনি বলেন, ‘দেশের অর্থনীতিকে আরো শক্তিশালী করতে পোশাক খাত ছাড়াও অন্য খাতের ওপর যথাযথ গুরুত্ব দেওয়া প্রয়োজন। করোনার প্রভাবে চীন থেকে অনেক বিদেশি প্রতিষ্ঠান স্থানান্তর হওয়ায় বিনিয়োগকারীদের প্রত্যাশিত গন্তব্য হিসেবে বাংলাদেশের সুযোগ রয়েছে। একই সঙ্গে আমাদের দেশে বিনিয়োগ পরিবেশের বিভিন্ন সীমাবদ্ধতাও আছে। এ থেকে উত্তরণ ঘটাতে হবে। দেশের অর্থনীতিবিষয়ক নীতিমালা গ্রহণের আগে বাস্তবতার ভিত্তিতে তাত্ত্বিক দিক বিশ্লেষণ করতে হবে।’

ড. জাহিদ হোসেন বলেন, ‘চীন থেকে যেসব বিনিয়োগ স্থানান্তরের সম্ভাবনা আছে, সেসব বিনিয়োগকারীর সঙ্গে এখন সরকারি ও বেসরকারি পর্যায়ে যোগযোগ শুরু করা উচিত। তার আগে বিদেশি বিনিয়োগকারীদের জন‌্য সব ধরনের সুযোগ-সুবিধা নিশ্চিত করতে হবে।‘

অর্থনীতির অনেকগুলো মাত্রা ব্যাখ্যা করে তিনি বলেন, ‘একেবারে তলানিতে ঠেকে যাওয়া এই অর্থনীতি করোনাভাইরাসের সংক্রমণ না কমলে পুনরুদ্ধার করা সম্ভব হবে না। পুরো বিশ্বের অর্থনৈতিক প্রতিযোগিতায় টিকে থাকার জন্য দেশের সামগ্রিক শিক্ষা খাতের উন্নয়ন, বিশেষ করে কারিগরি শিক্ষার ওপর জোর দিতে হবে। বিদ্যমান শিক্ষাব্যবস্থাকে কর্মমুখী করতে হবে, শিক্ষার্থীরা যেন শিক্ষাজীবন শেষ করেই নিজেদের ভবিষ্যৎ নিজেরাই নির্ধারণ করতে পারেন।’