হাইকোর্টে মামলা পরিচালনায় মানতে হবে যেসব নির্দেশনা

 

নিউজ ডেস্ক: আগামী ১২ আগস্ট থেকে শারীরিক উপস্থিতিতে সুপ্রিম কোর্টের হাইকোর্ট বিভাগে বিচার কাজ শুরু হতে যাচ্ছে। এ লক্ষ্যে মামলা, দরখাস্ত ফাইলিং এবং নকল (কপি) সরবরাহের ক্ষেত্রে ৫ দফা নির্দেশনা দিয়েছে সুপ্রিম কোর্ট প্রশাসন।

সোমবার (১০ আগস্ট) সুপ্রিম কোর্টের রেজিস্ট্রার জেনারেল মো. আলী আকবর  স্বাক্ষরিত এক বিজ্ঞপ্তিতে এ তথ্য জানানো হয়েছে।

বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়েছে, আগামী ১২ আগস্ট থেকে সুপ্রিম কোর্টের হাইকোর্ট বিভাগে মামলা ও দরখাস্ত ফাইলিং এবং নকল সরবরাহের ক্ষেত্রে নিম্ন লিখিত নির্দেশনাগুলো অনুসরণ করার জন্য অনুরোধ করা হলো—

১. করোনাভাইরাস (কোভিড-১৯) উদ্ভুত পরিস্থিতির পূর্বের প্রচলিত নিয়ম অনুসারে সব প্রকারের মামলা ও দরখাস্ত ফাইলিং করা যাবে। ফাইলিং পরবর্তী এফিডেভিটকৃত মামলার নথি সংশ্লিষ্ট আদালতে দাখিলের ক্ষেত্রে করোনাভাইরাস (কোভিড-১৯) উদ্ভুত পরিস্থিতির পূর্বের পদ্ধতি প্রযোজ্য হবে।

২. ভার্চুয়াল কোর্টে মামলা ও দরখাস্ত শুনানির ক্ষেত্রে ভার্চুয়াল শুনানির লিংক প্রেরণের জন্য ফাইলিংয়ের সময় সব মামলা ও দরখাস্তের ওপর নিয়োজিত আইনজীবীর ই-মেইল অ্যাডড্রেস উল্লেখ করতে হবে।

৩. ফাইলিং শাখায় ইতোমধ্যে দাখিলকৃত মামলা ও দরখাস্তের ক্ষেত্রে করোনাভাইরাস (কোভিড-১৯) উদ্ভুত পরিস্থিতির পূর্বের প্রচলিত পদ্ধতি প্রযোজ্য হবে।

৪. শারীরিক উপস্থিতি ও ভার্চুয়াল উভয় পদ্ধতিতে মামলা ও দরখাস্ত শুনানির জন্য করোনাভাইরাস (কোভিড-১৯) উদ্ভুত পরিস্থিতির পূর্বের প্রচলিত নিয়ম অনুসারে দৈনিক কার্যতালিকা প্রস্তুত ও প্রচারিত হবে।

৫. নকল শাখার স্বাভাবিক কার্যক্রম চলমান খাকায় শারীরিক উপস্থিতি ও ভার্চুয়াল উভয় পদ্ধতিতে পরিচালিত সব বেঞ্চ থেকে প্রদত্ত আদেশ এবং রায়ের নকল করোনাভাইরাস (কোভিড-১৯)উদ্ভুত পরিস্থিতির পূর্বের প্রচলিত নিয়েমে সরবরাহ করা হবে।