মুখোশ পরিধানে আইন প্রয়োগ ও সচেতনতা সৃষ্টির নির্দেশ মন্ত্রিপরিষদ সচিবের

নিউজ ডেস্ক: করোনাভাইরাস সংক্রমণ বৃদ্ধির প্রেক্ষাপটে সরকার মাঠ পর্যায়ের প্রশাসনকে মারাত্মক এ ভাইরাস প্রতিরোধে জনগণকে মুখোশ ব্যবহার সম্পর্কে সচেতন করতে সচেতনতামূলক প্রচারণা চালানোর পাশাপাশি মোবাইল কোর্ট পরিচালনার নির্দেশ দিয়েছে।
প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা মন্ত্রিসভার নিয়মিত সাপ্তাহিক ভার্চুয়াল বৈঠকে তাঁর সরকারি বাসভবন গণভবন থেকে ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে যোগ দিয়ে সভাপতিত্ব করেন এবং এ সংক্রান্ত নির্দেশনা দেন। মন্ত্রিপরিষদ সদস্যরা বাংলাদেশ সচিবালয় থেকে এতে সংযুক্ত ছিলেন।
বৈঠকের পর মন্ত্রিপরিষদ সচিব খন্দকার আনোয়ারুল ইসলাম ১০ আগষ্ট বাংলাদেশ সচিবালয়ে এক সংবাদ সম্মেলনে ব্রিফিংকালে বলেন, ‘প্রধানমন্ত্রীর সভাপতিত্বে মন্ত্রিসভার নিয়মিত সাপ্তাহিক বৈঠকে আমরা করোনভাইরাস সংক্রমণ নিয়ন্ত্রণে পদক্ষেপ নিয়ে আলোচনা করেছি।’
তিনি আরো বলেন, তারা মাঠ পর্যায়ের প্রশাসনকে আইন প্রয়োগের জন্য যথাযথ ব্যবস্থা গ্রহণ এবং জনগণকে স্বাস্থ্যবিধি যথাযথভাবে মেনে চলতে বিশেষত মুখোশ পরা সম্পর্কে উৎসাহিত করতে ব্যাপক জনসচেতনতামূলক প্রচারণা চালানোর নির্দেশ দিয়েছেন।
এ বিষয়ে মন্ত্রিপরিষদ সচিব বলেন, আজকাল দেখা যাচ্ছে যে, অনেকের মধ্যে মুখোশ পরা নিয়ে সচেতনতা হ্রাস পাচ্ছে।
আনোয়ারুল বলেন, ‘জনগণকে আমাদের আরো সচেতন করতে হবে। তাই আমরা মাঠ প্রশাসনকে সশরীরে স্পটে যেতে এবং মাইক ব্যবহার ও বিলবোর্ড ঝুলানোর মাধ্যমে মানুষকে সচেতন করতে নির্দেশ দিয়েছি।’
তিনি বলেন, কিছু ক্ষেত্রে মোবাইল কোর্ট পরিচালনা করা যেতে পারে এবং মানুষকে সচেতন করতে গণমাধ্যমের উচিত এসব অভিযান সংক্রান্ত খবরগুলো সঠিকভাবে প্রচার করা ।
তিনি বলেন, লোকজন যদি জানতে পারে যে, কিছু লোককে মাস্ক না পরার জন্য বাস, মার্কেট ও অন্যান্য জায়গায় মোবাইল কোর্টের মাধ্যমে শাস্তি দেওয়া হয়েছে, তাহলে তারা এ সম্পর্কে সচেতন হবে।’
তিনি আরো বলেন, এটি জনগোষ্ঠীর অংশগ্রণের একটি বিষয় বিধায় গণমাধ্যম এ লক্ষ্যে বিরাট ভূমিকা রাখতে পারে।
রোববার সচিব-পর্যায়ের বৈঠকের কথা উল্লেখ করে মন্ত্রিপরিষদ সচিব বলেন, তাদেরকে করোনা ভাইরাস সংক্রমণ নিয়ন্ত্রণে পদক্ষেপ গ্রহণের বিষয়ে প্রয়োজনীয় নির্দেশনা দেয়া হয়েছে।