দেশের অর্থনীতি নিয়ে কিছু অর্থনীতিবিদ মনগড়া কথা বলছেন : খালিদ মাহমুদ

নিউজ ডেস্ক:    করোনায় দেশের অর্থনীতি নিয়ে কিছু অর্থনীতিবিদ মনগড়া কথা বলছেন বলে মন্তব্য করেছেন নৌ পরিবহন প্রতিমন্ত্রী খালিদ মাহমুদ চৌধুরী। তিনি বলেন, কিছু অর্থনীতিবিদ বলছেন, দেশের অর্থনীতি দুর্বল। অর্থনীতি যদি দুর্বল হয়ে যায়; তাহলে কীভাবে মসজিদে-মন্দিরে টাকা দেওয়া হলো? করোনার সময়ে কীভাবে কোটি কোটি মানুষের কাছে ত্রাণ পৌঁছানো হল? নগদ অর্থ দেয়া হল।

এসব অর্থনীতিবিদদের সমালোচনা করে নৌ প্রতিমন্ত্রী আরো বলেন, মৌমাছি যেভাবে ভ্যান ভ্যান করে, সেভাবে কিছু অর্থনীতিবিদ অপেক্ষা করে, কখন টেলিভিশনের সামনে যাব। কখন সরকারবিরোধী কথা বলব। এগুলো মনগড়া, কাগজে লিখা থাকে, তৈরি করা। সারারাত জেগে এসব তৈরি করে, সারাদিন বলে বেড়ায়।

শুক্রবার দুপুরে দিনাজপুর জেলার বিরলে কাঞ্চন নিউ মডেল ডিগ্রি কলেজের একাডেমিক ভবনের উদ্বোধন ও উপজেলা পরিষদ অডিটোরিয়ামে বিভিন্ন ব্যক্তি ও প্রতিষ্ঠানের মাঝে সরকারি অর্থ বিতরণ অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন।

খালিদ মাহমুদ চৌধুরী বলেন, দেশরত্ন শেখ হাসিনা আজকে দাতাদের দিকে তাকিয়ে নেই। ৯০ ভাগ নিজস্ব অর্থে জাতীয় সংসদে উন্মুক্ত আলোচনার মধ্য দিয়ে বাজেট পাশ হয়েছে। নিজস্ব অর্থে পদ্মাসেতু হচ্ছে। দেশের জনগণের অনুভূতি পদ্মাসেতু। শেখ হাসিনা এ অনুভূতিকে ধারন করেন। আর এ অনুভূতির বিরুদ্ধে বিশ্বব্যাংক ও খালেদা জিয়া দাঁড়িয়েছিল। আজকে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সততা ও সাহসিকতার সামনে বিশ্বব্যাংক আত্মসমর্পণ করেছে। তিনি বলেন, অর্থনীতি ভাল বলেই সরকার করোনা সময়ে বিভিন্ন প্যাকেজ ঘোষণা করেছে। ভূমিহীন কৃষকের জন্য ঋণের ব্যবস্থা করেছে। ছাত্র-ছাত্রীদের জন্য বিনামূল্যে বই বিতরণ করছে। উপবৃত্তির ব্যবস্থা করা হয়েছে। মসজিদ-মন্দিরে উন্নয়ন হচ্ছে। এ উন্নয়ন টেকনাফ থেকে তেতুলিয়া চলমান আছে।

কোভিডের কারণে দেশের অর্থনীতি ধ্বংস হয়ে গেছে- কিছু অর্থনীতিবিদদের এমন বক্তব্যে তীব্র প্রতিক্রিয়া ব্যক্ত করে নৌ প্রতিমন্ত্রী বলেন, ধ্বংস বাংলাদেশ হয় নাই। বাংলাদেশের অর্থনীতি ধ্বংস হয় নাই। ধ্বংস হয়েছে দেশবিরোধী চক্র। তারা আস্তে আস্তে নির্মূল হয়ে যাবে। এ অপশক্তি বাংলাদেশে থাকবে না।