ভেন্টিলেটর তৈরি করেছেন রুয়েট শিক্ষক-শিক্ষার্থীরা

নিউজ ডেস্ক:   দেশে করোনাকালীন দুর্যোগে ভেন্টিলেটর সংকট সমাধানে এগিয়ে এসেছেন রাজশাহী প্রকৌশল ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের (রুয়েট) শিক্ষক-শিক্ষার্থীরা। রুয়েটের ইলেকট্রিক্যাল অ্যান্ড ইলেকট্রনিক ইঞ্জিনিয়ারিং বিভাগের অধ্যাপক ড. মাসুদ রানার নেতৃত্বে একদল শিক্ষার্থী তৈরি করেছেন ভেন্টিলেটর।

করোনাকালে যুক্তরাষ্ট্রের ‘ম্যাসাচুসেট্স ইনস্টিটিউট অব টেকনোলজি’র তৈরি ইমার্জেন্সি ভেন্টিলেটরের মডেলের আদলে এটি প্রস্তুত করা হয়েছে। মাত্র ৩০-৩৫ হাজার টাকায় নতুন ভেন্টিলেটর যন্ত্র মিলবে বলে দাবি করছেন উদ্ভাবনকারী দলের সদস্যরা।

মঙ্গলবার দুপুরে রুয়েটের ইলেকট্রিক্যাল অ্যান্ড ইলেকট্রনিক ইঞ্জিনিয়ারিং বিভাগের হল রুমে অনুষ্ঠিত সংবাদ সম্মেলনে এ তথ্য জাননো হয়। এতে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন রুয়েটে উপাচার্য অধ্যাপক ড. রফিকুল ইসলাম সেখ। উদ্ভাবনকারী দলটির নাম ‘টিম দুর্বার কান্ডারী’।

দলের প্রধান অধ্যাপক ড. মাসুদ রানা বলেন, ভেন্টিলেটরটি মাত্র ৩০-৩৫হাজার টাকা ব্যয়ে প্রস্তুত করা সম্ভব। দেশীয় প্রযুক্তি ব্যবহার করে এবং কেবলমাত্র করোনা রোগীদের চাহিদার কথা ভেবে প্রস্তুত করা হয়েছে। ভেন্টিলেটরটি ওয়েববেজে তৈরি; ডাক্তার রোগীর কাছে না থেকে দূর থেকেও প্রযুক্তির মাধ্যমে দেখাশোনা করতে পারবেন।

কার্যকারিতা সম্পর্কে জানতে চাইলে তিনি বলেন, ‘আমরা প্রাথমিক পর্যায়ে আছি। সাধারণ কিছু কাজ করা গেছে, এতে সফল হয়েছি। চলতি মাসেই (জুলাই) আমরা ক্লিনিক্যাল ট্রায়ালে যাব; ফল ভালো হলে অনুমোদনের জন্য দ্রুতই স্বাস্থ্য অধিদপ্তরে আবেদন করব।’

সংবাদ সম্মেলনে রুয়েটের ভারপ্রাপ্ত রেজিষ্ট্রার অধ্যাপক ড. সেলিম হোসেন, পরিকল্পনা ও উন্নয়ন পরিচালক অধ্যাপক মিয়া মো. জগলুল সাদত, গবেষণা ও সম্প্রসারণ পরিচালক অধ্যাপক ফারুক হোসেন, ইসিই বিভাগের প্রধান ড. শামীম আনোয়ার, ছাত্রকল্যাণ উপ-পরিচালক মামুনুর রশীদ ও আবু সাঈদ, রুয়েটের চীফ মেডিকেল অফিসার ডা. মকসেদ আলীসহ উদ্ভাবনকারী দলের সদস্যরা উপস্থিত ছিলেন।