কানাডার বিভিন্ন শহরে মাস্ক পরা বাধ্যতামূলক হচ্ছে

নিউজ ডেস্ক:   করোনার বিস্তার ঠেকাতে আলবার্টা, অটোয়াসহ কানাডার কয়েকটি শহরে মাস্ক পরা বাধ্যতামূলক করার সিদ্ধান্ত নিয়েছে দেশটির সরকার। ইতোমধ্যে টরেন্টো শহরে সবার জন্য মাস্ক পরা বাধ্যতামূলক করা হয়েছে।

কানাডার আলবার্টার ক্যালগেরির মেয়র নাহিদ নেনশি ক্যালগেরিবাসীদের উদ্দেশে হুঁশিয়ারি দিয়ে বলেছেন, ক্যালগারিয়ানরা যদি মাস্ক পরিধান করার জন্য নিজেরা সতর্ক না হয় তবে দুই সপ্তাহের মধ্যে শহরে সবার জন্য মাস্ক পরা বাধ্যতামূলক করা হতে পারে।

ক্যালগেরির স্থানীয় গণমাধ্যম ‘ক্যালগেরি হেরাল্ড’ কে মেয়র নেনশি বলেন, তিন কারণে মাস্ক পরা উচিত।জনসাধারণের মধ্যে অন্যদের থেকে দূরত্ব বজায় রাখা এবং সঠিক স্বাস্থ্যবিধি বজায় রাখার পাশাপাশি কোভিড -১৯ ভাইরাসের সংক্রমণকে সীমাবদ্ধ রাখার জন্য সবার মাস্ক পরা উচিত।

কানাডার স্থানীয় গণমাধ্যম সিটিভি জানিয়েছে,২৭ জুলাইয়ের মধ্যে মন্ট্রিয়ালের অভ্যন্তরীণ পাবলিক স্পেসগুলোতে মাস্ক বাধ্যতামূলক করা হবে। মন্ট্রিয়ালের মেয়র ভেলারি প্ল্যান্ট জানিয়েছেন, জুলাই থেকেই পাবলিক প্লেসে মাস্ক বাধ্যতামূলক করা হচ্ছে।

মেয়র ভেলারি প্ল্যান্ট মন্ট্রিয়ালের সবাইকে স্বেচ্ছায় মাস্ক পরার জানিয়ে বলেন, জানি আপনারা সবাই স্বাভাবিক জীবনে ফিরতে চান। সুন্দর সামার উপভােগ করতে চান। তবে একসাথে সবাই নির্দেশনা অনুসরণ করলেই আমরা একটি সম্ভাব্য দ্বিতীয় পর্যায়ের কোভিড থেকে নিজেকে রক্ষা করতে পারবাে।

ইতিমধ্যে টরন্টো শহরে মাস্ক পরা বাধ্যতামূলক করা হয়েছে। ফলে স্টোর, শপিং মল, উপাসনালয় এবং বিনোদন কেন্দ্রগুলোতে মাস্ক পরতে হচ্ছে সবাইকে। এছাড়াও টরন্টোর পাবলিক ট্রানজিট সিস্টেমে মাস্ক বাধ্যতামূলক করা হয়েছে। মঙ্গলবার পর্যন্ত অটোয়ার সব অভ্যন্তরীণ পাবলিক প্লেসে মাস্ক বাধ্যতামূলক করা হয়েছে।

উল্লেখ্য, কানাডায় এখন গ্রীষ্মকাল চলছে। শিশু-কিশোরদের স্কুল বন্ধ রয়েছে। স্বাস্থ্যবিধির কথা চিন্তা করে অনেকেই বাইরে ঘুরতে যাচ্ছেন না। মানসিক প্রশাস্তি আর গ্রীষ্মকালের কথা ভেবে দুই-একটি পরিবার বের হচ্ছে স্বাস্থ্যবিধি মেনে। সর্বশেষ তথ্য অনুযায়ী কানাডার করোনাভাইরাসে আক্রান্তের সংখ্যা ১ লাখ ৬ হাজার ৭৪২ জন, মৃতের সংখ্যা ৮ হাজার ৭৪৬ এবং সুস্থ হয়েছেন ৭০ হাজার ৫০৩ জন।