জাপানে বন্যায় ৫০ জনের মৃত্যু : সময়ের সঙ্গে লড়াই করছে উদ্ধারকারীরা

নিউজ ডেস্ক:   জাপানের পশ্চিমাঞ্চলে ভয়ঙ্কর বন্যা ও ভূমিধসে অন্তত ৫০ জনের মৃত্যুর পর আবহাওয়া দপ্তরের আরো মৌসুমী বৃষ্টিপাতের ঘোষণার মধ্যে বিপর্যস্ত এলাকায় মঙ্গলবার লোকদের উদ্ধারে জরুরি সংস্থাগুলো “সময়ের বিরুদ্ধে লড়াই” চালিয়ে যাচ্ছে।

জাপানের আবহাওয়া সংস্থা (জেএমএ) দেশের দক্ষিণ পশ্চিমাঞ্চলে আরো ভারি বৃষ্টি ও ভূমিধসের দ্বিতীয় সর্বোচ্চ জরুরি সতর্কতা জারি করে বলেছে দেশব্যাপী “ঝুঁকি বৃদ্ধি পাচ্ছে”।

শনিবার ভোরে শুরু হওয়া এই প্রবল বৃষ্টিতে অন্তত ৫০ জন মারা গেছে। সরকারে প্রধান মুখপাত্র ইয়োসিহিদি সুগা বলেছেন,আরো ২ জনের মৃত্যুর আশঙ্কা করা হচ্ছে, মৃত্যুর সংখ্যা আরো বাড়তে পারে এবং অনেকে এখনো নিখোঁজ রয়েছে বলে খবর পাওয়া গেছে।

এএফপি জানায়, সবচেয়ে ক্ষতিগ্রস্ত কুমামোতো অঞ্চলের কর্মকর্তা ইউতারো হামাসাকি বলেছেন,“আমরা সময়ের বিরুদ্ধে লড়াই করে যাচ্ছি।”

হামাসাকি বলেন, “অভিযান কখন শেষ হবে সে ব্যাপারে আমরা এখনো কোন সময় সীমা ঠিক করিনি। তবে সময় থাকতেই আমাদের উদ্ধার অভিযান জোরদার করতে হবে। আমরা শেষ পর্যন্ত হাল ছাড়বো না।”

জাপানের প্রধানমন্ত্রী শিনজো অ্যাবে বলেছেন, তিনি উদ্ধারকারী সদস্যের সংখ্যা দ্বিগুণ করেছেন। পুলিশ ও ফায়ার সার্ভিসের পাশাপাশি কোস্টগার্ড মিলিয়ে এই সংখ্যা দাঁড়িয়েছে ৮০ হাজার।

নদীর পানি উপচে পড়েছে, সেতু ভেসে গেছে এবং সড়কগুলো লেকে পরিণত হয়েছে। কেবল হেলিকপ্টারের সাহায্যে সেখানে উদ্ধার অভিযান চালানো সম্ভব।

ওমুতায় একটি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের গ্রাউন্ড ফ্লোর বন্যায় তলিয়ে গেলে অনেক শিশু এবং তাদের শিক্ষকরা উপরের তলায় আশ্রয় নিয়ে রাত কাটিয়েছে।

ট্যুরিস্ট হাব হিতোইয়োশি সিটির র‌্যাফটিং (প্লাস্টিক বা রাবারের বোট) ব্যবসায়ী কেনতারো ওইশিকে স্থানীয়দের সঙ্গে উদ্ধারের পরে তিনি এএফপিকে বলেছেন,“আমার বিশ বছরের র‌্যাফটিয়ের অভিজ্ঞতা আছে, কিন্তু আমি কখনো শহরের মধ্য দিয়ে নৌকা চালানোর কথা স্বপ্নেও ভাবিনি ।”