যুক্তরাজ্যের নিষেধাজ্ঞা মিয়ানমারের দুই সেনা জেনারেলের ওপর

নিউজ ডেস্ক:    যুক্তরাজ্যের নিষেধাজ্ঞার কবলে পড়েছেন মিয়ানমারের রাখাইন প্রদেশে রোহিঙ্গা গণহত্যার নির্দেশদাতা হিসেবে কুখ্যাত দুই শীর্ষ সেনা জেনারেল। এ দুজন হলেন মিয়ানমার সশস্ত্র বাহিনীর সর্বাধিনায়ক সিনিয়র জেনারেল মিন অং হ্লাইং ও সেকেন্ড ইন কমান্ড ভাইস সিনিয়র জেনারেল সো উইন।

যুক্তরাজ্যের পররাষ্ট্রমন্ত্রী ডমিনিক রাব সোমবার গুরুতর মানবাধিকার লঙ্ঘনের অভিযোগে ওই দুই জেনারেলসহ বিশ্বের বিভিন্ন দেশের ৪৯ ব্যক্তি ও প্রতিষ্ঠানের বিরুদ্ধে নিষেধাজ্ঞা আরোপ করেন। এই নিষেধাজ্ঞার ফলে মিয়ানমারের ওই দুই জেনারেল আর যুক্তরাজ্যে ঢুকতে পারবেন না। যুক্তরাজ্যে তাদের কোনো সম্পদ থাকলে তাও বাজেয়াপ্ত হবে। খবর বিবিসির।

সিনিয়র জেনারেল মিন অং হ্লাইংয়ের বিরুদ্ধে অভিযোগ প্রসঙ্গে যুক্তরাজ্যের পররাষ্ট্র ও কমনওয়েলথ দফতর বলেছে, তিনি ২০১৭ ও ২০১৯ সালে রাখাইন রাজ্যে সামরিক অভিযান, রোহিঙ্গা জনগোষ্ঠীর ওপর নৃশংসতা চালানো ও গুরুতর মানবাধিকার লঙ্ঘনের জন্য দায়ী। ওই অভিযানগুলোতে রোহিঙ্গাদের বাড়িঘর জ্বালিয়ে দেয়া, ব্যাপক মাত্রায় হত্যাযজ্ঞ, নির্যাতন, জোরপূর্বক শ্রম দিতে বাধ্য করা, পরিকল্পনামাফিক ধর্ষণ ও অন্যান্য যৌন নির্যাতন-নিপীড়ন হয়েছে।

ভাইস সিনিয়র জেনারেল সো উইনের বিরুদ্ধেও একই ধরনের অভিযোগ রয়েছে। এছাড়া তিনি রাখাইন রাজ্যে মানবাধিকার লঙ্ঘনের জন্য জেনেশুনে অর্থায়নের সঙ্গেও জড়িত বলে জানিয়েছে যুক্তরাজ্যের পররাষ্ট্র ও কমনওয়েলথ দফতর।

গত বছরের জুলাই মাসে যুক্তরাষ্ট্রও মিয়ানমারের শীর্ষ জেনারেলদের ওপর অনুরূপ নিষেধাজ্ঞা আরোপ করে। মিয়ানমারে রোহিঙ্গাদের ওপর সংঘটিত গুরুতর নিপীড়নের মাধ্যমে ‘জেনোসাইড’ বা গণহত্যা সংঘটিত হয়েছে বলে জোরালো অভিযোগ রয়েছে।

রোহিঙ্গা নিপীড়নের জবাবদিহিতা নিশ্চিত করতে বর্তমানে আন্তর্জাতিক ফৌজদারি আদালত (আইসিসি), আন্তর্জাতিক ন্যায়বিচার আদালতসহ (আইসিজে) আন্তর্জাতিক কাঠামোতে উদ্যোগ বাস্তবায়ন চলছে।